আজ ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১লা অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সময় : সকাল ৬:৫০

বার : বৃহস্পতিবার

ঋতু : শরৎকাল

বাংলাদেশের ইতিহাসে এক কালাে অধ্যায় ১৫ আগষ্ট

প্রবাসী শিশু – কিশাের  আম্মান, জর্ডান

জর্ডানে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় শােক দিবস ১৫ আগস্ট ২০২০ পালন করেছে । দিবসটি উপলক্ষ্যে দূতাবাস বিভিন্ন কর্মসূচীর আয়ােজন করে । এই উপলক্ষ্যে দূতাবাসে শিশু – কিশােরদের অংশগ্রহণে ‘ বাংলাদেশের ইতিহাসের এক কালাে অধ্যায়ঃ ১৫ আগষ্ট ও আমার ভাবনা ‘ শীর্ষক এক উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযােগিতার আয়ােজন করা হয় ।বাংলাদেশের ইতিহাসে এক কালাে অধ্যায় ১৫ আগষ্ট

প্রতিযােগিতায় অংশগ্রহণকারী শিশু – কিশােররা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তাদের ভাবনা এবং তাঁর অকাল প্রয়াণে তাদের অনুভূতির কথা ব্যক্ত করে ।

তারা এই আয়োজনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবার সম্পর্কে জানার সুযােগ করে দেয়ার জন্য দূতাবাস – কে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে প্রতিযােগীতায় বিজয়ী শিশু কিশােরদের সম্মাননা পুরস্কার প্রদান করা ।

জর্ডানে নিযুক্ত বাংলাদেশের মান্যবর রাষ্ট্রদূত নাহিদা সােবহান ১৫ আগস্ট সকালে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করনের মাধ্যমে জাতীয় শােক দিবসের অনুষ্ঠান শুরু করেন । এরপর ১৫ আগষ্টে নিহত শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয় । অনুষ্ঠানের শুরুতেই পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত এবং দোয়া ও মােনাজাত করা হয় । এরপর বঙ্গবন্ধুর উপর নির্মিত একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয় ।

দিবসটি উপলক্ষ্যে আয়ােজিত আলােচনাসভায় দূতাবাসের কর্মকর্তাগণ ছাড়াও জর্ডান প্রবাসী বাংলাদেশীরা অংশ নেন।উপস্থিত প্রবাসী বাংলাদেশীদের পক্ষ থেকে জনাব জনাব জালাল উদ্দিন আহমেদ , জনাব ডঃ মােয়াজ্জেম হােসেন ও জনাব এহসান উল হক হেলাল প্রমুখ বক্তব্য রাখেন । তারা বলেন , ১৫ আগস্ট আমাদের জাতির ইতিহাসে এক কলঙ্কজনক অধ্যায় ।

এমন ঘটনা কেবল দেশের ইতিহাসে নয় বরং পৃথিবীর ইতিহাসে ও বিরল । বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের সবাইকে হত্যার মাধ্যমে খুনিরা যে নীল নকশা বাস্তবায়ন করতে চেয়েছিল , বাংলাদেশের মানুষ কখনই তা হতে দেয়নি । তাই স্বাধীনতার প্রায় অর্ধ শতাব্দী পরও বাংলার ঘরে ঘরে আজ চিরঞ্জীব শেখ মুজিবুর রহমান । বক্তারা বঙ্গবন্ধুর সকল পলাতক খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে শাস্তির মাধ্যমে আদালতের রায় কার্যকরের আহ্বান জানান । মান্যবর রাষ্ট্রদূত তাঁর বক্তব্যে বলেন , বঙ্গবন্ধু ছিলেন বাঙালি জাতির স্বপ্নদ্রষ্টা ও মহান স্বাধীনতার রূপকার । প্রতিটি গণতান্ত্রিক ও স্বাধিকার আন্দোলনে তিনি ছিলেন বাঙ্গালির আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতীক ।

বঙ্গবন্ধু হত্যার ঘটনা বাংলাদেশের এক লজ্জাস্কর ইতিহাস , আমাদের কলঙ্কের ইতিহাস । আন্তর্জাতিক আইনের চোখেও এই ঘটনা অবৈধ , অগণতান্ত্রিক এবং বেআইনী । কিন্ত ঘাতকেরা বঙ্গবন্ধুকে ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের হত্যা করলেও তাঁর স্বপ্নকে নষ্ট করতে পারেনি । বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারন করে দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে তাঁরই কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে তাই দেশ আজ এগিয়ে চলেছে উন্নয়নের মহাসড়কে । তাঁরই হাত ধরে বাংলাদেশ বিশ্বের কাছে আজ এক অপার বিস্ময় ।

মান্যবর রাষ্ট্রদূত উপস্থিত শিশু – কিশােরদের বঙ্গবন্ধুকে জানার ও তাঁর বহুমাত্রিক জীবনের নানা দিক সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান লাভ করার জন্য অনুপ্রাণিত করেন । তিনি বলেন , নতুন প্রজন্মের কাছে বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরা সকলের কর্তব্য ।

তিনি বঙ্গবন্ধুকে হারানাের শােককে শক্তিতে পরিণত করে ভিশন ২০৪০ বাস্তবায়নে তাঁর স্বপ্নের সােনার বাংলা বিনির্মাণে সকলকে নিয়ােজিত হতে আহবান জানান ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category