আজ ১১ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সময় : রাত ৮:৫৫

বার : শনিবার

ঋতু : শরৎকাল

বিশ্বনাথে বিধবার সম্পত্তি দখলের অভিযোগঃ আদালতে মামলা

রাজা মিয়া বিশেষ প্রতিনিধিঃ

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার অলংকারী ইউনিয়নের আলম নগর গ্রামের এক বিধবা মহিলার পাসপোর্ট জালিয়াতি ও ভূয়া কাগজপত্র তৈরি করে সম্পত্তি দখলের পায়তারা ও প্রাণ নাশের হুমকির অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় বুধবার (২৭ আগস্ট) সিলেটের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ৩নং আমলী আদালতে বিধবা কলছুমা বেগম (৪৫) বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন, (মামলা নং বিশ্বনাথ সিআর-১৫৪/২০২০)। তিনি একই গ্রামের এবং অলংকারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মৃত মকদ্দস আলী উরফে মখন মিয়ার স্ত্রী।

মামলায় অভিযুক্তরা হলেন- অলংকারী ইউনিয়নের আলমনগর গ্রামের মৃত ইসকন্দর আলীর পুত্র মকরম আলী উরফে গেদা মিয়া (৫০), মকরম আলী উরফে গেদা মিয়ার স্ত্রী ছানোয়ারা বেগম (৪৫), পালোগাঁও গ্রামের মৃত আপ্তাব আলীর পুত্র শানুর মিয়া (৩০), মুছেধর গ্রামের মৃত ফজলু মিয়ার পুত্র জিয়াউর রহমান (৩২), দক্ষিণ সুরমা উপজেলার কাঠাদি গ্রামের আবদুল করিমের পুত্র আবদুল কাইয়ুম (২০), মনু মিয়ার পুত্র জাহিদ খান (২৪)।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, মামলার প্রধান অভিযুক্ত আলমনগর গ্রামের মৃত ইসকন্দর আলীর পুত্র মকরম আলী উরফে গেদা মিয়া সিকন্দর আলীর পুত্র মকদ্দস আলী সাজিয়া প্রতারণার মাধ্যমে পাসপোর্ট, জন্ম সনদসহ জাল কাগজপত্র করে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমান। পরবর্তীতে মকদ্দছ আলী সেজে মৃত মকদ্দছ আলী উরফে মখন মিয়ার পৈত্রিক সম্পত্তি দখল করার জন্য বিভিন্ন কৌশলে লিপ্ত রয়েছেন। এমনকি মৃত মকদ্দছ আলীর স্ত্রী ও তিন সন্তানকে বাড়ি থেকে বের করে দিতে তার লোকবল দিয়ে প্রাণে মারার হুমকিও দিয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে, মকদ্দছ আলী উরফে মখন মিয়ার বসত-ঘরের জায়গা দখল ও স্ত্রী-সন্তানসহকে হত্যা করার হুমকির অভিযোগে (২০ আগস্ট) সিলেট সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ৩নং আমলী আদালতে এবং প্রবাসীর স্ত্রীর বসবাসরত ভূমি যাহাতে বেদখল ও উক্ত সম্পত্তি থেকে তাহাকে বিতাড়িত না করতে পারে সেজ্জন্য ১৪৪ ধারা নিষেধাজ্ঞা জারি করার লক্ষ্যে (১৮ আগস্ট) সিলেট অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আরো দুটি পৃথক মামলা দায়ের করেছেন মরহুম মকদ্দছ আলী উরফে মখন মিয়ার স্ত্রী কলছুমা বেগমের ভাগ্না জাবির হোসেন। মামলা নং বিশ্বনাথ বিবিধ মোকদ্দমা নং ১৯/২০২০ইং এবং বিশ্বনাথ সিআর মোকদ্দমা নং ১৪৯/২০২০ইং। এরমধ্যে ১৪৯ নং মামলাটি পিবিআইতে তদন্তাধীন রয়েছে।

এ বিষয়ে মামলার ১নং অভিযুক্ত মকরম আলীর ভাগ্নে ৩নং অভিযুক্ত শানুর মিয়া নিজেদের উপর উত্তাপিত সকল অভিযোগ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত দাবী করে বলেন, দেশে আমার মামার নাম মকরম আলী, পিতা ইসকন্দর আলী আর যুক্তরাজ্যে গেছেন মকদ্দছ আলী, পিতা ছিকনদ্দর আলী।এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ষড়যন্ত্র মূলক অভিযোগ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category