আজ ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সময় : সকাল ৮:২০

বার : বুধবার

ঋতু : শরৎকাল

সিলেট গ্যাস ফিল্ডস এ কর্মী নিয়োগ ৬ দফা দাবীতে ফুঁসে উঠছে চিকনাগুলবাসী

সিলেট গ্যাস ফিল্ড লিমিটেডে এ লোক নিয়োগের ব্যাপারে ৬ দফা দাবীতে চিকনাগুল ইউনিয়ন বাসী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। ৬ দফা দাবি আদায়ের লক্ষে গ্যাস ফিল্ড লিঃ কর্তৃপক্ষ বরাবর স্মারক লিপি প্রদান করেছে স্থানীয় ইউনিয়ন বাসী।


মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় স্থানীয় হযরত শাহজালাল (রঃ) ডিগ্রি কলেজ গেইট সম্মুখ হতে মিছিল সহকারে গ্যাস ফিল্ড লিমিটেডের প্রদান গেইট গিয়ে সমাবেশ মিলিত হয় এলাকাবাসী। সভায় বক্তারা বলেন সিলেট গ্যাস ফিল্ড লিমিটেড এর প্রধান কার্যালয় চিকনাগুল ইউনিয়নে অবস্থিত। এতে করে ইউনিয়নবাসী সবসময় গ্যাস ফিল্ড কর্তৃপক্ষের নিকট আশা রাখে যোগ্যতার ভিত্তিতে তাদের ইউনিয়নের শিক্ষিত বেকার যুবকদের চাকরি সুযোগ করে দিবে কর্তৃপক্ষ। তারা বলেন এই দাবী আমরা দীর্ঘদিন থেকে জানিয়ে আসছি কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় হলো গত ২৩ আগস্ট হঠাৎ করে আমরা বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পারি কর্তৃপক্ষ ডে লেভার হিসেবে কিছু সংখ্যক জনবল নিয়োগ দিয়েছেন যেখানে চিকনাগুলের লোক নাম মাত্র কয়েকজন।

আমরা দীর্ঘদিন থেকে বিভিন্ন দাবীদাওয়া নিয়ে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছি যাতে যোগ্যতার ভিত্তিতে আমাদের ইউনিয়ন থেকে বিভিন্ন পদে জনবল নিয়োগ ও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দাবীদাওয়া অগ্রধিকার ভিত্তিতে মেনে নেয়া হয়। বিষয়গুলো নিয়ে সিলেট ৪ আসনের সংসদ সদস্য প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইমরান আহমদ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি রাজনৈতিক সামাজিক নেতৃবৃন্দ সহ সিলেট গ্যাস ফিল্ড কর্তৃপক্ষের সাথে বিভিন্ন সময়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। কর্তৃপক্ষ আমাদের দাবীসমূহ মেনে নিয়োগ পক্রিকা করার সিদ্ধান্ত নিবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেন। কিন্ত এসব কথা ভুলে গিয়ে ডে লেভার নিয়োগ দিয়ে সাথে সাথে অফিসার পদে স্থায়ী নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন যা অত্যন্ত দুঃখজনক। আমরা কর্তৃপক্ষের নিকট আহবান জানাচ্ছি যাদের ডে লেভার হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন তাদের চাকরি স্থায়ীকরণ ও অগ্রধিকার ভিত্তিতে আমাদের ইউনিয়ন থেকে শিক্ষিত যুবকদের স্থায়ী চাকরিতে যথাযত ভাবে নিয়োগের ব্যাবস্থা নিবেন।

সভা শেষ ইউনিয়ন বাসীর পক্ষে থেকে ৬টি দাবী উল্লেখ করে গ্যাস ফিল্ড লিমিটেডের জিএম প্রশাসন শওকতুল আলম কাদরীর নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেন। ইউনিয়ন বাসীর দাবীগুলো হচ্ছে (১) সিলেট গ্যাস লিঃ আমাদের প্রাণের একটি ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান এই প্রতিষ্ঠানে আমাদের চিকনাগুল ইউনিয়নের মধ্যে অবস্থিত। বর্তমানে এই প্রতিষ্টানে শিক্ষিত অল্পশিক্ষিত লোক ডে লেভার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে এতে করে আমাদের দাবী কমপক্ষে ১০০ জন লোককে নিয়োগ দেওয়া হউক। (২) কোম্পানির আইন অনুযায়ী আউট সোর্সিং পক্রিয়ায় জনবল প্রদান করা হলে চিকনাগুল ইউনিয়নের ২০ ভাগ লোক নিয়োগ দিতে হবে। (৩) স্থানীয় নিয়োগের ক্ষেত্রে আমাদের অগ্রধিকার দিতে হবে। (৪) সিলেট গ্যাসফিল্ড এর অর্থায়নে অত্র ইউনিয়নে একটি কারিগরি কলেজ প্রতিষ্ঠা করতে হবে। (৫) আমাদের ইউনিয়নে গরিব মেধাবী ছাত্রছাত্রীদের বৃত্তি প্রদানের ব্যাবস্থা করতে হবে। (৬) চিকনাগুল ইউনিয়নের অন্তর্গত এফ আই ডিবি কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত পরবর্তীতে ত্যাগ করে চলে যাওয়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনুদান প্রদান করতে হবে।


এসময়ে উপস্থিত ছিলেন জৈন্তাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান চৌধুরী,সদস্য বাদশা মিয়া, চিকনাগুল ইউনিয়নের সাবেক প্যানেল চেয়ারম্যান হাফেজ আব্দুল মুছাব্বির ফরিদ, চিকনাগুল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আশিক উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক মানিক মিয়া,জৈন্তাপুর উপজেলা শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ শাহিন আহমেদ,উপজেলা যুবলীগের সদস্য কামরান হোসেন, চিকনাগুল ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহিন ফেরদৌস, সহ সভাপতি এসকে কামাল,স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহসভাপতি শাহেদ আহমদ নাবিল,সমসুর উদ্দিন, যুবলীগ নেতা কামরুল ইসলাম,সেবুল দেব নাথ, আব্দুর রহমান,তোফায়েল আহমদ, মুমিন আহমদ,ইসলাম উদ্দিন,মঈনুল ইসলাম, মাসুক আহমদ,আলমগীর হোসেন, ইফতেখার হোসেন, আবু হুরায়রা, আনোয়ার হোসেন, রকি,রেজুয়ান,ছালেহ আহমদ,কয়েছ আহমদ,জুবায়ের, আব্দু নুর,হানিফ হোসেন,মুকিদ চৌধুরী মঈনুল ইসলাম প্রমূখ।
উল্লেখ সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার ৬নং চিকনাগুল ইউনিয়নের পানিছড়া গ্রামের অবস্থিত সিলেট গ্যাস ফিল্ড লিমিটেডের প্রধান কার্যালয়। নানা জটিলতায় দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে নিয়োগ পক্রিয়া। কিন্ত হঠাৎ করে গত ২৩ আগস্ট কোন বিজ্ঞপ্তি ছাড়া ডে লেভার হিসেবে ৫০ জন যুবককে নিয়োগ দেয় কর্তৃপক্ষ। এই নিয়োগের খবর মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ স্থানীয় ও জাতীয় গণমাধ্যমে। নিয়োগে নিয়ে সিবিএ নেতৃবৃন্দর উপর উঠতে থাকে নানা অনিয়ম ও টাকার বিনিময়ে চাকরি দেয়ার অভিযোগ। এবিষয়ে সিলেট গ্যাস ফিল্ড লিঃ কর্মচারী ইউনিয়ন সিবিএর সভাপতি প্রদীপ কুমার শর্মা বলেন আমার জানামত দৈনিক ৩৫০ টাকা মজুরিতে কিছু সংখ্যক ডে লেভার নিয়েছে কর্তৃপক্ষ এটাকে যারা অন্য ভাবে উপস্থাপন করছেন তার কোন ভিত্তি নেই। যেখানে নিয়োগ দেয়া হয়নি কর্তৃপক্ষ সেখানে বানিজ্য বা দুর্নীতির তো প্রশ্নই আসে না। আমার বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মিথ্যা বানোয়াট অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। আমি সামান্য কর্মচারী বর্তমান সিবিএ এর দায়িত্বে রয়েছি এখানে আমি চাকরি কিভাবে দিব চাকরি দিবে কর্তৃপক্ষ এসব বিষয়ে আমি সংশ্লিষ্ট নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category