শিরোনাম
পদ্মাসেতুর উদ্বোধনস্থলে হবিগঞ্জের তিন জনপ্রতিনিধি সাতক্ষীরা তালায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ৩ ডাকাত গ্রেফতার বালাগঞ্জে খেলাফত মজলিসের ত্রাণ বিতরণ। ঘাটাইল উপজেলায় আওয়ামীলীগের ৭৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ওসমানীনগর উপজেলায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি,নিশ্চুপ জনপ্রতিনিধিরা শেরপুর প্রেসক্লাবে(মৌলভীবাজার)এর বন্যার্তদের মধ্যে রান্না করা খাবার বিতরন সিলেট কোম্পানিগঞ্জে বন্যা দুর্গতদের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করছেন সন্ধানী জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ ইউনিট এর নেতৃবৃন্দ বন্যায় দুর্গতদের পাশে ‘তালামীযে ইসলামিয়া’। বানিয়াচঙ্গে বানভাসিদের মাঝে ‘বাসদ’ ও ‘উদীচী’র ত্রাণ বিতরণ। আওয়ামী লীগ সব সময় জনগণের পাশে আছে, এটি অব্যাহত থাকবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ০২:২০ পূর্বাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

বিশ্বনাথে বিধবার বসত ঘরে তালা! থানায় অভিযোগ

Coder Boss / ৩১৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

রাজা মিয়া বিশেষ প্রতিনিধিঃ
বিশ্বনাথে এক বিধবা মহিলার স্কুল পড়ুয়া একমাত্র শিশু সন্তানসহ বাড়ি থেকে বের করে বসত ঘরে তালা দিল সৎ ছেলেরা! বিধবা উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের মান্দারুকা গ্রামের মৃত আলতাবুর রহমানের দ্বিতীয় স্ত্রী নেহার বেগম (৪৫)।

গত ১১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকেলে ভাত খাওয়া থেকে তুলে শুধু পরনের কাপর দিয়ে তাকে চুলের মুঠোয় ধরে ও শিশু পুত্রকে গাড় ধাক্কা দিয়ে ঘর থেকে বের করে দেয় দুই সৎ পুত্র আতিকুর রহমান (৪০) ও সুমন মিয়া (৩০)।এসময় তাদের সাথে ছিল ওই বিধবার আরেক ভাসুর পুত্র খালিক মিয়া (৩৫)।

বর্তমানে ওই মহিলা তার স্কুল পড়–য়া শিশু পুত্র ছাদিকুর রহমান (১২) কে নিয়ে চারদিন ধরে এক কাপড়ে একই গ্রামের ভাসুর আমজদ মিয়ার বাড়িতে বসবাস করে আসছেন।

এমন অভিযোগ এনে সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে বিধবা নেহার বেগম বাদি হয়ে ওই তিনজনের নামে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, প্রায় ১২ বছর পূর্বে তার স্বামী আলতাবুর রহমান মারা যান। এর পর থেকে তিনি অন্যের বাড়িতে কাজ করে তার একমাত্র পুত্র সন্তানকে নিয়ে চরম অভাব অনটনে জীবন চালিয়ে যাচ্ছেন।

লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, প্রায় ১২ বছর পূর্বে তার স্বামী আলতাবুর রহমান মারা যান। এর পর থেকে তিনি অন্যের বাড়িতে কাজ করে তার একমাত্র পুত্র সন্তানকে নিয়ে চরম অভাব অনটনে জীবন চালিয়ে যাচ্ছেন।কাজের বিনিময়ে তিনি যে টাকা পান সেই টাকা দিয়ে ছেলের পড়া লেখা ও সংসার চলে। সৎ ছেলেরা তাদের দেখাশুনার দায়িত্ব না নিয়ে উল্টো বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার জন্য অত্যাচার করে আসছে।

অবশেষে শুক্রবার তাদেরকে এক কাপড়ে বাড়ি থেকে বের করে বসত ঘরে তালা দিয়ে রেখেছে।ওই বিধবা গ্রামের লোকজনের কাছে গিয়ে বিচার চান। কিন্তু আসামিরা মুরব্বিয়ানদের ডাকে সাড়া দেয়নি। তাই তিনি থানায় ওই অভিযোগটি দায়ের করেন। এব্যাপারে জানতে চাইলে অভিযুক্ত সৎ ছেলে সুমন মিয়ার সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হয়।কিন্তু তিনি মোবাইল ফোনে বক্তব্য দিতে অপারগতা জানিয়ে সাংবাদিকদের বলেন শুক্রবারে তার বাড়িতে গিয়ে বক্তব্য আনতে।অভিযোগের কথা স্বীকার করে থানার ওসি শামীম মূসা বলেন-তদন্ত স্বাপক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

বিভাগের খবর দেখুন