আজ ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সময় : রাত ১২:১৯

বার : সোমবার

ঋতু : হেমন্তকাল

রঞ্জিত সরকার ও জাহাঙ্গীরের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করার পায়তারায় কিছু অনলাইন পোর্টাল কারা এই ভিত্তিহীন কথার মদদদাতা

সিলেট নিউজ ডেস্ক-
একজন রঞ্জিত সরকার ও একজন জাহাঙ্গীর আলম এদের মতো বেক্তিদের নিয়ে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য ও ফায়দা হাসিলের জন্য কে বা কারা ভিত্তিহীন ভাবে সিল নিউজ বিডি অনলাইন এ হেডলাইন দিয়েছে ধর্ষকরা রঞ্জিত জাহাঙ্গীর এর অনুসারী, তারা নাকি এদের গড ফাদার দুঃখজনক হলেও হাস্যকর কথা। ধর্ষনের ঘটনা ঘটিয়েছে গুটি ৬/৭ জন আর এদের বিরুদ্ধে আইনি প্রক্রিয়া চলছে পুলিশের অভিযান ও অব্যাহত রয়েছে। সেখানে সিলেটের অতি সু পরিচিত সবার প্রিয় মুখ এডভোকেট রঞ্জিত সরকার ও যুবলীগের অন্যতম নেতা জাহাঙ্গীর আলম এদের মতো মানুষদের উদ্দেশ্য প্রনোধিতো ভাবে ভুইফুর দের মতো কেনো এরকম লেখা লেখি হচ্ছে তা খুবই বে মানান। দেশ বাসী বিচার দেখতে চায় কে গডফাদার আর কার সাথে কার ছবি তা দিয়ে বিচার হয় না, যেমন মক্কাশরিফের ইমামের সাথে অনেক চুর দের ছবি থাকাটাই স্বাভাবিক ব্যাপার তাই বলে ইমামকে গডফাদার বলে আখ্যায়িত করা মুর্খতার বহিঃপ্রকাশ।

রাজনৈতিক ফায়দা হসিল ও রঞ্জিত সরকার এবং জাহাঙ্গীর আলমদের মতো অন্যায়ের বিরুদ্ধে আপোষহীন রাজনীতিবিদ দের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার পায়তারায় দৈনিক সিল বিডি র নাম মাত্র সম্পাদক ও প্রকাশক দের মদদে ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশের তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন অনেকে। ধর্ষনের ঘটনায় যে বা জারাই জড়িত তাদের বিচারের আওতায় আনার জন্য আপোষহীন ভাবে রঞ্জিত সরকার কড়া হুশিয়ারি দিয়ে বলেন ধর্ষক যেই হোক তাদের কুনো রাজনৈতিক পরিচয় সামাজিক পরিচয় থাকতে পারেনা এরা দেশ ও দশের শত্রু। এদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টিান্তমুলক শাস্তির জোরালো দাবি জানান এড,রঞ্জিত সরকার। উল্লেখ্য ধর্ষনের ঘটনায় বিভিন্ন অনলাইন সংবাদ ও ফেইসবুক যোগাযোগ মাধ্যমে এ লেখালেখি হয়,
ঐই ঘঠনা কে পুজি করে হাজার হাজার রাজনৈতিক নেতা কর্মিদের আশ্রয়স্থল সিলেটের অতি প্রিয় এড, রঞ্জিত সরকার ও জাহাঙ্গীর আলমদের মত রাজনীতিবীদ দের সুনাম ক্ষুন্ন করার জন্য কার মদদে এই রকম বে মানানসই লিখা

(ধর্ষনকারিদের গড ফাদার রঞ্জিত,জাহাঙ্গীর, নাজমুল)

রাজনৈতিক নেতৃত্ব ও রাজনৈতিক নেতা হলে কি দুষ্কৃতিকারীদের গডফাদার হতে হয়। এটা সর্বোপরি সচেতন সামাজিক ও রাজনৈতিক অংগসমূহের সবারই অজানা।

সিল বিডি নিউজ ও দৈনিক সিলেটের দিনকাল এ এরকম বেমানান সংবাদ প্রচার কেনো করা হলো এটা উদ্দেশ্য প্রনোধিতো। এর তিব্র নিন্দা জানিয়েছেন অনেকেই,আবার কেউ কেউ বলেন কিছু কিছু ভুইফুর অনলাইন পোর্টাল টাকার বিনিময়ে অসত্য ও মান হানির ন্যায় সংবাদ প্রকাশ করা সম্পাদকিয় কলামের ধারপ্রান্তে ও পড়ে না, ভুইফুর দের মতো সম্পাদকও প্রকাশক হলেই কি রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য ভিত্তিহীন কথা প্রকাশ করা লাগবে এটা খুবই দুঃখজনক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category