আজ ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সময় : দুপুর ১২:১২

বার : রবিবার

ঋতু : বর্ষাকাল

বরিশালের বানারীপাড়ায় গরুর ফার্মে পরিকল্পিত চুরি।। বিদেশী জাতের ৬ টি গরু চুরি

 

জাকির হোসেন, বরিশালঃ

বরিশাল জেলার বানারীপাড়ায় রাতের আধারে বিদেশী জাতের ৬ টি বিশালাকার গরু চুরি হয়ে যাবার ঘটনা ঘটেছে। উপজেলার চৌয়ারীপাড়া গ্রামের বোর্ডস্কুলের পশ্চিম পাশের মাহফুজুর রহমান লিটনের আল এহেশান ডেইরী ফার্ম হতে ৬ টি বিশালাকার বিদেশি গরু গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে চুরি হয়। কে বা কাহারা চুরি করেছে তা এখন ও জানা যায়নি। আল এহেশান ডেইরী ফার্ম মালিক লিটনের সহায় সম্বল ৭ টি গরুর ৬ টি গরু চুরি হয়ে যাওয়ায় নিঃস্ব সম্বলহীন হয়ে পাগলের মত আচরন করছে অসহায় লিটন। নিজের সকল পূজি ব্যয় করে নিজে ফার্মে দিন রাত পরিশ্রম করে পরিচর্যা করে আসছেন এহেশান ফার্মে। চুরি হয়ে যাওয়া ৬ টি গরুর ৩ টি কালো ফাকরা গরু ২ টি কালো ফাকরা বাছুর, আর ১ টি বড় খয়েরী গরু ছিল। পরিতাপের বিষয় ঐ ৬ টি গরুর ২ টি গরু ছিল গর্ভবতী, ২ টি গরু দুগ্ধ দিত। বাকী ২ টি ছিল বাছুর তাও বিশালাকার । সহায় সম্বলহীন হয়ে ক্রন্দন রত অবস্থায় লিটন বলেন আমি রাত ১ টা পর্যন্ত ফার্মে কাজ করেছি। যখন কাজ করে যাই তখন আমি ৭ টি গরু শক্ত করে বেধে দরজায় তালা লাগিয়ে যাই। যে গরুটি চুরি করতে পারেনি সেটি কিছুটা হিংস্র। তারপর ও সেই গরুটার ও দরি কাটার চেষ্টা করছে। চোরেরা গরুগুলোকে সোজা রাস্তায় না নিয়ে ফার্মের দক্ষিন পূর্ব পার্শ্ব হতে নামিয়ে ঝালকাঠির রাস্তায় নিয়ে ট্রাকে ভরে। মালিকের দাবী যেখান থেকে গরুগুলোকে নেয়া হয়েছে তা চেনা জানা মানুষ ব্যতীত নিতে পারে না। তাছাড়া ফার্মে কাজ করতে অনেক যন্ত্রাংসের প্রয়োজন। যা আমি ফার্মের কোন এক জায়গায় কাজ শেষে প্রতিদিন রেখে যাই। গরুগুলোর দরি কাটতে যে দাও ব্যবহার করা হয়েছে তা আমার ফার্মে কোন এক জায়গায় রাখা ছিল। যা চেনা জানা কিংবা ফার্মে আসা যাওয়া মানুষ ছাড়া কেহরই জানার কথা না। তার দাবী শত্রুতার বসে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে আমাকে আর্থিক ভাবে পথে বসানোর জন্যই আমার চেনা শত্রুরা এমনটা করেছে। কাউকে সন্দেহ করার বিষয়ে ফার্ম মালিক লিটন বলেন হ্যা আমি কিছু মানুষকে সন্দেহ করি। আর প্রশাসনের সহযোগীতা পেলে সেই চোরদের ধরা সম্ভব হবে। চুরি যাওয়া ৬ টি গরুর আনুমানিক মূল্য ১৫ লাখ টাকা। লিটন সর্বদা গরু দেখাশুনা করে। থানায় অভিযোগের বিষয়ে লিটন বলেন যথাযথ আইনী ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ফার্মের গরু থেকে উৎপন্ন দুগ্ধ বিক্রি করে সে নিজের পরিবার পরিজন নিয়ে খেয়ে পগে বেঁচে আছে। লিটন আরো বলেন গরুগুলো যেহেতু অনেক বড় চোরেরা এখন পর্যন্ত কোন হাটে বিক্রি করতে পারেনি। হয়তো বড় কোন ফার্মে নিয়ে যেতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category