শিরোনাম
কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী নির্বাচিত হয়েছেন স্বরেয়া হোসেন বর্ষা মানুষ মানুষের জন্য, সকলে বন্যার্ত অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানো উচিত…এটিএম হামিদ প্রাকৃতিক দূর্যোগে দিশেহারা সিলেট, থৈথৈ করে বাড়ছে পানি কানাইঘাটে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলের দ্বায়িত্বশীলরা পানি বিশুদ্ধ করন ট্যাবলেট নিয়ে উপজেলার বন্যাগ্রস্ত মানুষের পাশে বানিয়াচংয়ে বাংলা টিভি’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন সরকার বন্যার্তদের পাশে আছে ত্রাণের অভাব হবেনা— এমপি মানিক সিলেটে বন্যা দুর্গত এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন ঘাটাইল উপজেলায় আশ্রয়ন প্রকল্পের অধীনে বরাদ্দকৃত ঘরে ফাটল ছাতকে বন্যার অবনতি,নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত উপজেলা সদরের সাথে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন গোবিন্দগঞ্জে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুর্ধ১৭ এর সেমিফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত
শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৫:১৪ পূর্বাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

বানিয়াচংয়ে হ্যান্ডকাফসহ ছিনিয়ে নেয়া আসামি গ্রেফতার হয়নি ৯ দিনেও

Coder Boss / ১৩৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৪ অক্টোবর, ২০২০

 

পলাশ পাল স্টাফ রিপোর্টারঃ

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলায় চার পুলিশ সদস্যকে পিটিয়ে হ্যান্ডকাফসহ আসামি ছিনিয়ে নেয়ার ৯ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত সেই আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। তবে খুব দ্রুত তাকে গ্রেফতারের আশা করছেন তারা।

এদিকে, আসামীর স্বজনদের হামলায় গুরুত্বর আহত পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) তোয়াহা এখনও রাজধানী ঢাকার রাজারবাগ পুলিশলাইন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রয়েছেন। তার অবস্থার বেশ উন্নতি হলেও পুরোপুরি সুস্থ হতে অনেক বাকি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

গত ১৪ অক্টোবর (বুধবার) রাত ৮টার দিকে বানিয়াচং উপজেলার দক্ষিণ সাঙ্গর গ্রামের একটি মামলার আসামি বুলবুল মিয়াকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এসময় আসামির স্বজনরা পুলিশের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। একপর্যায়ে তারা চার পুলিশ সদস্যকে পিটিয়ে হ্যান্ডকাফসহ আসামি ছিনিয়ে নিয়ে যান। খবর পেয়ে বানিয়াচং থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত সদস্যদের উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এতে গুরুতর আহত সুজাতপুর ফাঁড়ির উপপরির্দশক (এসআই) তোয়াহাকে রাজধানী ঢাকার রাজারবাগ পুলিশলাইন্স হাসপাতালে পাঠানো হয়। বর্তমানে তিনি সেখানে চিকিৎসাধিন রয়েছেন।

আহত অপর তিন পুলিশ সদস্য সুজাতপুর ফাঁড়ির এএসআই সোহেল রানা, কনস্টেবল হাতিমুরা ও সোহেলকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছিল।

এ ঘটনায় পরদিন পুলিশ বাদি হয়ে বানিয়াচং থানায় ১৫ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ২৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে মামলার প্রধান আসামি মক্রমপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ৮নং ওয়ার্ড সদস্য মুমিনুল হক ও তার ভাই মুজিবুর রহমানসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠায়।

হ্যান্ডকাফসহ আসামি ছিনিয়ে নেয়ার ৯ দিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত ছিনিয়ে নেয়া সেই আসামিকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশ বলছে- আসামি দূরে কোথাও গাঢাকা দিয়ে রয়েছে। তবে খুব দ্রুত তাকে গ্রেফতার করা হবে।

বানিয়াচং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরান হোসেন বলেন- ‘আসামি হবিগঞ্জের বাহিরে দূরে কোথাও গাঢাকা দিয়ে রয়েছে। যে কারণে তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে যতই দূরে থাকুক না কেন দ্রুতই তাকে গ্রেফতার করা হবে। এ ব্যাপারে পুলিশ বিভিন্ন স্থানে নজর রেখেছে।’

তিনি বলেন- ‘গুরুত্বর আহত পুলিশের উপ পরিদর্শক (এসআই) তোয়াহা এখন অনেক চেয়ে অনেক ভালো আছেন। তবে তার গায়ে ২৫টি সেলাই দিতে হয়েছে যে কারণে তাকে সুস্থ হতে আরও অনেকদিন লাগতে পারে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। বর্তমানে সে রাজধানী ঢাকার রাজারবাগ পুলিশলাইন্স হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় রয়েছে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

বিভাগের খবর দেখুন