আজ ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সময় : দুপুর ১:৪৪

বার : বুধবার

ঋতু : হেমন্তকাল

বরিশালে কামালপন্থী ছাত্রদল নেতা টিপুর উপর সন্ত্রাসী হামলা।উন্নত চিকিৎসায় রাতেই নেওয়া হলো ঢাকায়।

জাকির হোসেন, বরিশাল জেলা প্রতিনিধি।।

বরিশাল ছাত্রদল নেতা রফিকুল ইসলাম টিপুকে সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত করায় উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানী ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। রক্তক্ষরনের ফলে ক্রমাগত তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটতে থাকলে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের চিকিৎসকেরা রাজধানীতে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। পরে শনিবার গভীর রাতে সড়কপথে স্বজনেরা টিপুকে নিয়ে রওনা হয়ে যান। এর আগে বরিশাল কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক টিপুকে শনিবার সন্ধ্যারাত ৮টার দিকে বাসার পাশে কালিবাড়ি রোডস্থ শ্রীনাথ চ্যাটার্জী লেনের সম্মুখ এলোপাতাড়ি কোপায় সন্ত্রাসীরা। অন্তত ১৫/২০ অস্ত্রধারী পার্শ্ববর্তী একটি হোটেলে হামলা চালিয়ে টিপুকে টেনে হিচড়ে নিয়ে আসে এবং জনসাধারণের উপস্থিতিতে কুপিয়ে মৃত ভেবে রাস্তার ওপর ফেলে রেখে যায়।

উল্লেখ টিপু বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র ও বিএনপি নেতা আহসান হাবিব কামাল অনুগত ছাত্রদল নেতা এবং অভ্যন্তরীণ কোন্দলে নিহত ছাত্রদল নেতা রাফসান আহম্মেদ জিতুর বড় ভাই। একই স্থানে টিপুর ছোট ভাই রাফসান আহম্মেদ জিতুকে কুপিয়ে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। সেই একই স্থানে এবার টিপুর ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটল।

শেবাচিম চিকিৎসকদের একটি সূত্র জানায়, ধারালো অস্ত্রের আঘাতে টিপুর মাথা, মুখমন্ডলসহ শরীরের একাধিক স্থান ক্ষতবিক্ষত হয়েছে। রক্তক্ষরণ বন্ধ না হওয়ায় ক্রমশই ছাত্রদল নেতার শারীরিক অবস্থার অবনতি থাকলে রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।

টিপুর এক অনুসারী রোববার সকালে সাংবাদিকদের জানান, ছাত্রদল নেতাকে রাতে নিয়ে রওনা দেওয়া হলে তাকে বহনকারী অ্যাম্বুলেন্সটি রোববার সকাল সাতটার দিকে ঢামেকে গিয়ে পৌছেছে। এর পর তাকে ভর্তি করা হলে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে রাখে চিকিৎসকেরা। সেখানকার চিকিৎসদের বরাত দিয়ে জানান, ২৪ ঘণ্টা অতিবাহিত হওয়ার আগেই চিকিৎসকেরা কোন রেজাল্ট দিতে পারছেন না।

টিপুর ওপর হামলা ঘটনা প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রফিকুল ইসলাম টিপু শ্রীনাথ চ্যাটার্চী লেনের মুখে একটি হোটেলে বসে ছিলেন। এসময় আকস্মিক অন্তত ১৫ থেকে ২০ জন যুবক অস্ত্রসহ এসে তাকে টেনে বের করার চেষ্টা করে। এতে ব্যর্থ হয়ে তারা দোকানটি হামলা-ভাঙচুর চলায়। এবং একপর্যায়ে টিপুকে টেনে হিচড়ে বের করে রাস্তার ওপরে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে। এমনকি মাটিতে লুটিয়ে পড়ার পরেও টিপুকে অস্ত্রধারীরা কোপাতে থাকে। শেষে তাকে মৃত ভেবে সড়কের ওপর দেহটি ফেলে চলে যায়। নৃশংস এই ঘটনাটি আশাপাশ থেকে লোকজন প্রত্যক্ষ করলেও তাকে বাঁচাতে কেউ অগ্রসর হয়নি।

হামলাকারীরা স্থান ত্যাগের পরে কয়েকজন লোক তাকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও হামলাকারী কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

কোতয়ালি পুলিশের ওসি নুরুল ইসলাম জানান, হামলাকারীদের গ্রেপ্তারে পুলিশ মাঠে নামিয়ে দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category