আজ ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সময় : সকাল ১০:০৪

বার : রবিবার

ঋতু : বর্ষাকাল

সকল ষড়যন্ত্রকে উপেক্ষা করে দুর্নীতির মুলোৎপাটনের শপথ নিলো মহেশখালী জাগ্রত ছাত্রসমাজ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ “প্রতিবাদে প্রতিরোধে সংগ্রামে অবিচল থাকবোই,ন্যায়-নীতি দেশপ্রেমে বলীয়ান আমরা দুর্নীতি রুখবোই”এই প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে মহেশখালী থেকে সকল দুর্নীতিবাজদের মুলোৎপাটনের শপথ নিয়েছে মহেশখালী জাগ্রত ছাত্রসমাজ। আজ মহেশখালীর উত্তর ঝাপুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে সংগঠনটির আহ্বায়ক ছাত্রনেতা ফজলে আজিম মোঃ ছিবগাতুল্লাহর আহ্বানে সাড়া দিয়ে শতাধিক ছাত্র সমবেত হয়েছিল। মহেশখালীর মাটি ও মানুষের অধিকার আদায়ে নিরন্তর সংগ্রামে অংশ হিসেবে মহেশখালীর জাগ্রত ছাত্রসমাজ তাদের ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা ঠিক করতে এই সমাবেশের ডাক দিয়েছিল।উক্ত সভায় সংগঠনের আহ্বায়ক ছিবগাতুল্লাহ বলেন, কক্সবাজার জেলার একমাত্র ছাত্র সংঘঠন আমাদের এই জাগ্রত ছাত্রসমাজ। মাতৃভূমির প্রতি অকৃত্রিম টান থেকেই আমরা শুরু থেকেই মহেশখালীতে চলমান বর্তমান জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকারের ব্যাপক উন্নয়নযজ্ঞে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিলাম। আমরা সংগ্রাম করে এসেছি কৃষককে তাদের জমির ন্যায্য মূল্য পাইয়ে দেবার। আমরা দাবি জানিয়েছি ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ ও গৃহহীনদের পুনর্বাসনের। আমরা প্রবলভাবে আওয়াজ তুলেছি অত্র এলাকার শিক্ষিত, অর্ধশিক্ষিত, অশিক্ষিত সকল কর্মক্ষম মানুষকে চলমান প্রকল্পসমূহে যোগ্যতা অনুসারে চাকরি নিশ্চিতের। আমাদের ঘোষিত ৮ দফা দাবির প্রত্যেকটিই বাস্তবসম্মত ও ন্যায়ভিত্তিক। সেকারণে ছাত্র থেকে শুরু করে মহেশখালীর সর্বস্তরের মানুষ আমাদের এই আন্দোলনে সমর্থন জুগিয়ে এসেছে। কিন্তু কিছু স্থানীয় দুর্নীতিবাজ চক্র ও ভূমি অফিসের অসাধু কিছু কর্মকর্তা ও দালাল যোগসাজস করে আমার ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। লুটপাট করেছে ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসনের শত কোটি টাকা। এসবের বিরুদ্ধে সরব হওয়ায় আমাদের দেশপ্রেমিক কর্মীদের উপরে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে দেশদ্রোহী, জঙ্গি ট্যাগ দিয়ে পুলিশে দিয়েছে। কিন্তু আমরা সত্যের পক্ষে আছি বলে সব অভিযোগ, সব ষড়যন্ত্রকে মিথ্যা প্রমাণিত করে সবাই ছাড়া পেয়েছে। আমাদের আন্দোলনের ফসল হিসেবে জেলাজুড়ে সম্প্রতি দুর্নীতি দমন কমিশনের তদন্তে বেরিয়ে আসে অনেক রাঘববোয়ালের নাম। আমি ধন্যবাদ জানাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ও দুর্নীতি দমন কমিশন কে ও তদন্ত কর্মকর্তা অত্যন্ত সততা ও নিষ্ঠার সাথে সরকারের আরোপিত দায়িত্ব পালনের জন্য। তদন্ত কর্মকর্তার দৃঢ়তায় একে একে গ্রেফতার হয়েছেন অনেক দালাল, গ্রেফতার এড়াতে ভয়ে এলাকা ছাড়া বেশ কিছু দুর্নীতিবাজ জনপ্রতিনিধি ও তাদের আত্মীয়-স্বজন। আমরা আশা করি, আইনের হাত থেকে তারা কেউ রেহাই পাবে না। আজ নাহয় কাল গ্রেফতার হবেই।”এসময় সমবেত ছাত্ররা সমস্বরে ছিবগতুল্লাহ ও দুদকের কর্মকর্তার প্রতি জয়ধ্বনি উচ্চারণ করেন। বক্তব্যের শেষাংশে ছিবগতুল্লাহ দুর্নীতির বিরুদ্ধে অবিরত এই সংগ্রামে পাশে থাকার প্রত্যয়ে সবাইকে শপথ বাক্য পাঠ করান এবং ৮ দফা দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়ার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। উক্ত সমাবেশে এছাড়াও বক্তব্য রাখেন হোয়ানক ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আরমান এম. রহমান ও অন্যান্য ছাত্রনেতৃবৃন্দ। সবার মুখেই একই সুর প্রতিধ্বনিত হয়।আগামীতে সংগঠনের কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করতে এবং পরবর্তী কর্মসূচিতে ছাত্রদের অংশগ্রহণকে বেগবান করতে সদস্য সংগ্রহের ফরম বিতরণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছাত্রদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা পরিলক্ষিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category