আজ ১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সময় : রাত ১০:২৩

বার : বৃহস্পতিবার

ঋতু : বর্ষাকাল

তাহিরপুর সীমান্তের ও পাড়ে মৃত সাইদুরের লাশ ২ দিন পর ফেরত দিয়েছে ভারতীয় বিএসএফ

সুনামগঞ্জ –

সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলার লাউড়েরগড় সীমান্তের ওপাড়ে জাদুকাটা নদীর ভারতের নলিকাটা থানার ঘোমাঘাট এলাকায় মৃত কয়লা শ্রমিক সাইদুর রহমান(২৫) এর লাশ ৪৮ ঘন্টা (২দিন) ফেরত দিয়েছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ। সাইদুর রহমান তাহিরপুর উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়নের বড়গোফ টিলাগাও গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে।
আজ ২৩ মার্চ মমঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮ টার সময় তাহিরপুর সীমান্তের আন্তর্জাতিক সীমান্ত পিলার ১২০০/৩ এস এর শাহিদাবাদ এলাকায় বিজিবি ও বিএসএফ এর পতাকা বৈঠক শেষে সুনামগঞ্জ-২৮ ব্যাটালিয়ন বিজিবি ও তাহিরপুর থানা পুলিশের কাছে তার লাশ হস্থান্তর করে।
এসময় বাংলাদেশ বিজিবি ও পুলিশের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন, লাউড়েরগড় বিজিবির ক্যাম্প কমান্ডার নায়েক সুবেদার আব্দুর রাজ্জাক ও তাহিরপুর থানার বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রাজিবুল ইসলাম এবং ভারতীয় শিলং সেক্টরের ১১ বিএসএফএর কেপ্টেন অরবিন্দু সিং ও ভারতীয় পুলিশের কর্মকর্তাগন।
উল্লেখ্য : কয়লা শ্রমিক সাইদুর রহমান ২২ মার্চ সোমবার ভোর সকালে বিজিবির চোখকে ফাঁকি দিয়ে সীমান্ত নদী জাদুকাটার ভারতীয় অংশের ঘোমাঘাট এলাকায় কয়লা তোলতে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন দুপুরে জানতে পারে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের প্রায় ১ কিলোমিটার ভিতরে নলিকাটা থানার ঘোমাঘাট এলাকায় বাংলাদেশী এক কয়লা শ্রমিকের লাশ জাদুকাটা নদীতে ভাসমান অবস্থায় পড়ে রয়েছে। পরে স্থানীয়রা খোঁজ খবর নিয়ে জানতে পারে জাদুকাটা নদীর বালিচড়ে পরে থাকা মৃত কয়লা শ্রমিক বড়গোফ টিলাগাও গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে সাইদুর রহমানের শাল। পরে আজ ২৩ মার্চ ভারতীয় পুলিশ ও সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে রাত সাড়ে ৮ টার সময় বাংলাদেশ বিজিবি ও পুলিশের কাছে তার লাশ হস্থান্তর করলে বিজিবি ও পুলিশ রাত ৯ টার সময় আইনি প্রকৃয়া শেষে মৃত সাইদুর রহমানের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে।
এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বাদাঘাট পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো: রাজিবুল ইসলাম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category