আজ ৮ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সময় : রাত ৪:৩৭

বার : বুধবার

ঋতু : গ্রীষ্মকাল

মাধবপুরে আবারও একই রাতে ৩ টি মন্দির চুরি

আনিসুর রহমান, মাধবপুর প্রতিনিধিঃ হবিগঞ্জে মাধবপুরে আবারও একই রাতে তিনটি মন্দিরে চুরির ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) রাতের কোন এক সময় উপজেলার বহরা ইউনিয়নের পানিহাতা গ্রামে শ্রী শ্রী সিদ্ধেশ্বরী মন্দির, সঞ্জয় দত্তের পারিবারিক মন্দির ও পরশ সূত্রধরের পারিবারিক মন্দিরে এই চুরির ঘটনা ঘটে।
সিদ্ধেশ্বরী মন্দির কমিটির লোকজন জানান, প্রতিদিনের মত গতকাল সন্ধ্যায় পুরোহিত পূজা দিয়ে চলে যায়। সকালে পুরোহিত এসে দেখেন মন্দিরের গেইটের তালা ভেঙ্গে শ্রী শ্রী সিদ্ধেশ্বরী মন্দিরের প্রনামী বাক্স সহ টাকা, পিতলের কলসি ,বাদ্যযন্ত্র,ঘন্টা, করতাল, কাশি চুরি করে নিয়ে গেছে।
সঞ্জয় দত্তের পারিবারিক মন্দির থেকে মন্দিরের কাশার থাল, ঘন্টা, পিতলের বউল, নুলক ও বাদ্যযন্ত্র দুর্বৃত্তরা চুরি করে নিয়ে যায়।
পরশ সূত্রধরের পারিবারিক মন্দির থেকে তেমন কিছু নেইনি। তবে সব কিছু ভেঙ্গে রেখে যায়।
এনিয়ে চার দিনের মধ্যে তিন দফায় নয়টি মন্দিরে চুরির ঘটনা ঘটলো।
শনিবার রাতে প্রথম দফায় ও সোমবার রাতে দ্বিতীয় দফায় চুরির ঘটনার পর উপজেলা প্রশাসন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে সভা করে বিভিন্ন নির্দেশনা প্রদান করেন। কিন্তু প্রশাসনের এসব নির্দেশনার কোন সুফল এখনো পাওয়া যাচ্ছে না। সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষণে মনে হচ্ছে প্রশাসনের কার্যক্রম সভার মধ্যেই সীমাবদ্ধ। প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দুর্বৃত্তরা চুরির ঘটনা অব্যাহত রেখেছে । তৃতীয় দফায় মন্দির চুরির ঘটনার খবর পেয়ে মাধবপুর -চুনারুঘাট সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মুহসিন আল মুরাদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি এলাকার পাহারার ব্যাবস্থা নেওয়ার জন্য সবাইকে অনুরোধ করেন। সেই সাথে মন্দির চুরির ঘটনা যারা জড়িত আছে তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্হা নেওয়ার জন্য মাধবপুর থানার ওসিকে নির্দেশ দেন।

বহরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান জানান, গত কাল বিকেলে রাধাকৃষ্ণ মন্দিরে হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ ও পুজা উদযাপন কমিটির নিয়ে মন্দির এর নিরাপত্তার জন্য আইন শৃঙ্খলার বাহিনীর পাশাপাশি প্রত্যেক মন্দিরে ব্যাক্তিগত ভাবে পাহাড়া দেওয়ার জন্য মিটিং করা হয়। মন্দির চুরির ঘটনা খবুই দুঃখ জনক। এটি একটি সংঘবদ্ধ চক্রের কাজ হতে পারে। সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির জন্য এটি করা হচ্ছে।
মাধবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আব্দুর রাজ্জাক জানান, এটি একটি সংঘবদ্ধ চক্রের কাজ। একটি চক্র সুযোগ নিচ্ছে। দুর্বৃত্তদের গ্রেফতার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category