শিরোনাম
বৌভাতের আনন্দ চাপা পড়লো গার্ডারে। বিশ্বম্ভরপুরের সিরাজপুর বাগগাওঁ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শোক দিবস পালন জগন্নাথপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগ জাতীয় শোক দিবস পালিত ঘাটাইল বঙ্গবন্ধুর ৪৭ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস গোলাপগঞ্জে মডেল প্রবাসী কল্যাণ পরিষদের এর পরিচালনা কমিটির ১ম মিটিং অনুষ্ঠিত হয় দেশের দিশেহারা মানুষ আবারও জাতীয় পার্টির সুশাসন ফিরে পেতে চায় আশিক আহমেদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আলোচনা সভা জুড়ীতে চা শ্রমিকদের ধর্মঘট পালন শোক সংবাদ বানারীপাড়ায় জমিসংক্রাস্ত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় হিমোফিলিয়া রোগে আক্রান্ত সজিবের অবস্থা গুরুত্বর
সোমবার, ১৫ অগাস্ট ২০২২, ১০:১৯ অপরাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

কেশবপুরে মৎস্য ঘেরের বেড়িতে ঘুরতে গিয়ে সাপের কামড়ে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু

Coder Boss / ৯৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বুধবার, ৫ মে, ২০২১

এস কে সুমন, যশোর জেলা প্রতিনিধি:

যশোরের কেশবপুরে সাপের কামড়ে হানিফ হোসেন (১৭) নামে এক স্কুল ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। সোমবার ইফতারীর পর বন্ধুদের সঙ্গে উপজেলার সুজাপুর গ্রামের মৎস্য ঘেরের বেড়িতে ঘুরতে গিয়ে এ ঘটনা ঘটে। সে পৌরসভার বালিয়াডাঙ্গা এলাকার আলাউদ্দিন মোড়লের একমাত্র ছেলে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, কেশবপুর পৌরসভার বালিয়াডাঙ্গা এলাকার আলাউদ্দিন মোড়লের ছেলে হানিফ হোসেন সোমবার ইফতারীর পর বন্ধুদের সঙ্গে উপজেলার সুজাপুর গ্রামের মৎস্য ঘেরের বেড়িতে ঘুরতে যায়। সেখানেই বিষধর কোনো সাপ তার বাম পায়ে দংশন করে। বিষয়টি গুরুত্ব না দিয়ে ঘুরাঘুরি এক পর্যায় তার শরীরের অবস্থা অবনতি হলে সঙ্গে থাকা বন্ধুরা তাকে স্থানীয় ওঝা খলিলুর রহমানের কাছে ঝাড়ফুঁক করার জন্য নিয়ে যায়। ওই সময় ঝাড়ফুঁকে কোন কাজ না হওয়ায় হানিফ হোসেনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাত ১০ টার দিকে খুলনা সার্জিক্যাল হাসপাতালে নেওয়ার পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়। মৃতের চাচাতো ভাই আব্দুল সাত্তার মিন্টু জানায়, হানিফ হোসেন সোমবার ইফতারীর পর বন্ধুদের সঙ্গে উপজেলার সুজাপুর গ্রামের মৎস্য ঘেরের বেড়িতে ঘুরতে গেলে বিষধর সাপ তার বাম পায়ে দংশন করে। তার সঙ্গে থাকা বন্ধুরা তাকে বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের ওঝা খলিলুর রহমানের কাছে নিয়ে যায়। ওঝার ঝাড়ফুঁকে কোন কাজ না হওয়ায় সেখানেই হানিফ হোসেনের শরীরের অবস্থা অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য পরিবারের সদস্যরা খুলনা সার্জিক্যাল হাসপাতালে নেওয়ার পথিমধ্যে তার মৃত্যু হয়। সে স্থানীয় একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণি ছাত্র ছিল।

ওঝা খলিলুর রহমান মোবাইল ফোনে জানায়, হানিফ হোসেনকে সম্ভবত রাত পৌন ৯টার দিকে তার নিকট নিয়ে আসে। কিছু সময় পর তার শরীরের অবস্থা অবনতি হলে খুলনা ২৫০ বেড হাসপাতালে বা অন্য কোথাও নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

বিভাগের খবর দেখুন