আজ ১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সময় : বিকাল ৩:০১

বার : বৃহস্পতিবার

ঋতু : বর্ষাকাল

লকডাউনে উপজেলা প্রশাসন কঠোর ভূমিকায়॥ বিধি-নিষেধ অমান্য করায় ১৮ জনকে জরিমানা

এস কে আর সুমন, যশোর জেলা প্রতিনিধি:

মহামারী করোনা ভাইরাস অতিমাত্রায় বেড়ে যাওয়ায় সপ্তাহব্যাপী লকডাউনের ৫ম দিনে কেশবপুর উপজেলা প্রশাসন কঠোর ভূমিকা পালন করে চলেছেন। করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার ঘোষিত বিধি-নিষেধ অমান্য করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করার অপরাধে পৃথক অভিযানে ১৮ জনকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। করোনা ভাইরাস সংক্রমণের হাত থেকে উপজেলাবাসীকে রক্ষা করার জন্য রবিবার দিনব্যাপী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে জসনচেতনতা বৃদ্ধি ও সরকারী বিধি-নিষেধ প্রতিপালন করার লক্ষে অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এম এম আরাফাত হোসেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ইরুফা সুলতানা।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, কেশবপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে করোনাকালীন বিধি নিষেধ অমান্য করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করার অপরাধে শাওন ব্যাপারীকে ২ হাজার টাকা, আলমগীর হোসেনকে ১ হাজার টাকা, তাইজুল ইসলামকে ১ হাজার টাকা, বিমল কুমার দাসকে ১ হাজার টাকা, তরিকুল ইসলামকে ১ হাজার টাকা, বিপ্লব বিশ^াসকে ১ হাজার টাকা, মোসলেম উদ্দীনকে ৫শত টাকা, রাশেদ মোল্ল্যাকে ৫শত টাকা ও জনসমাগম করার অপরাধে তাপস সেনকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেন। মোট ৯ টি মামলায় ৯ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছেন।

অপরদিকে একই অভিযানে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইরুফা সুলতানা উপজেলার বিভিন্ন স্থানে করোনাকালীন বিধি নিষেধ অমান্য করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করার অপরাধে অসিম কুমারকে ৩ হাজার টাকা, তাজুল ইসলামকে ২ হাজার টাকা, প্রতীক সাহাকে ৫শত টাকা, রবিউল ইসলামকে ২শত টাকা, শামীম হোসেনকে ২শত টাকা, নিমাইকে ২শত টাকা, নজরুল ইসলামকে ২শত টাকা, বোরহান উদ্দীনকে ২শত টাকা ও অশোক কুমারকে ২শত টাকা জরিমানা করেন। মোট ৯ টি মামলায় ৬ হাজার ৭০০ টাকা জরিমানা আদায় করেছেন। করোনা সংক্রমণ রোধে ও জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে উপজেলা প্রশাসনের এই অভিযান অব্যাহত থাকবে। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় কেশবপুর থানা পুলিশ সহযোগিতা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category