শিরোনাম
নবীগঞ্জ পৌরসভার ময়লার স্তূপ হাসপাতালের পাশেই, ধোঁয়া দূুর্গন্ধে স্বাস্থ্যঝুকিতে এলাকাবাসী নরসিংদীতে হিন্দু ছাত্র মহাসংঘের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য নির্বাচিত হলেন জকিগঞ্জের মুমিনুল ইসলাম চেয়ারম্যান পদে স্বামী-স্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা, ছিটকে গেলেন স্বামী সাবেক চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমান’র মৃত্যুতে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর শোক জৈন্তাপুরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান’র দাফল সম্পন্ন-বিভিন্ন মহলের শোক এখলাছুর রহমান’র মৃত্যুতে জৈন্তাপুর উপজেলা আ’লীগের শোক সাবেক চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমানের মৃত্যুতে খসর’র শোক রুস্তমপুরে ছাত্রলীগের কমিটির গঠনের লক্ষ্যে জীবন বৃত্তান্ত সংগ্রহ করা হয় বিহঙ্গের উদ্যোগে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ সম্পন্ন..!!
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৪৬ অপরাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

দখলে দূষণে বিপন্ন বাসিয়া নদী নয় যেন মরা খাল”

Coder Boss / ১০৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ১২ মার্চ, ২০২২

রাজা মিয়া রাজ সিলেট:

বিশ্বনাথে প্রশাসন ও নেতৃস্থানীয়দের চোখের সামনেই দখল দূষণে বিলীন হচ্ছে নদীনালা-খাল-বিলসহ বড় বড় জলাশয়। কিন্তু এসব কর্তারা দেখে না দেখার ভান করে রয়েছেন। এদিকে জলাশয়গুলোতে ভরা বোরো মৌসুমে পানি না থাকায় কৃষকদের হাহাকার করতে হচ্ছে। কয়েক বছর ধরে নদীনালা-খাল-বিলে পানি না থাকায় গ্রামের অনেক বাড়িতে সাধারণ নলকূপে পানি সংকট দেখা দিয়েছে। তাই খাবার পানির জন্য জনসাধারণের নজর এখন গভীর নলকূপের দিকে। যা গরিব ও মধ্যবিত্তদের নাগালের বাইরে। দখলবাজদের বিরুদ্ধে জনপ্রতিনিধিসহ এই অঞ্চলের কেউই কথা বলছেন না। অথচ কয়েকদিন ধরে বর্তমান সংসদ-সদস্য আর উপজেলা চেয়ারম্যান সরকারের বরাদ্দ নিয়েই তুমুল দ্বন্দ্বে জড়িয়ে রয়েছেন। অন্যদিকে, এই উপজেলার বেশ কয়েকজন বড় বড় সংগঠনের জেলা ও কেন্দ্রীয় পর্যায়ে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। কিন্তু বিশ্বনাথের দখলবাজদের কাছ থেকে জলাশয় উদ্ধারে তাদের মুখে কোনো কথাই শোনা যাচ্ছে না। বর্তমানে পরিবেশবাদীরাও অনেকটা নিশ্চুপ রয়েছেন।

দখলে দূষণে বিপন্ন বাসিয়া নদী নয় যেন মরা খাল"

জানা যায়, বিশ্বনাথে পানির একমাত্র ভরসাস্থল হচ্ছে বাসিয়া নদী। এই নদীর নামে নামকরণ করা হয়েছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বাস ভবন থানার ব্র্যাকের নাম। অথচ সেখানকার কর্মকর্তাদের চোখের সামনেই পৌর শহরের ভেতরে দখল আর দূষণে বিলীন হচ্ছে এই কাক্সিক্ষত নদীটি। তালিকা করে একাধিকবার টেন্ডার হলেও উচ্ছেদের কোনো পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না। এছাড়াও চোখের সামনে দখল আর দূষণে বিলীন হয়েছে এক সময়ের খরস্রোতা চরচন্ডি নদী ও বাসিয়া নদী থেকে প্রবাহিত রামপাশা মাকুন্দা নদীর সঙ্গে সংযোগ বড় একটি খাল। বর্তমানে মাকুন্দা নদীটিও খনন কাজ চলছে। কিন্তু নদীটির মধ্যস্থান খনন না করে দুই তীরের ঘাস পরিষ্কারের কাজ চলছে। এভাবে কয়েক বছর পূর্বে বাসিয়া নদী খনন করা হলেও বর্তমান যেমন ছিলো তেমনই আছে। কিন্তু সরকারের কোটি কোটি টাকা জলে গেলেও উপকার পাচ্ছেন না জনসাধারণ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  

বিভাগের খবর দেখুন