শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ০৭:৫৬ পূর্বাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

হামলায় স্বীকার মোকাব্বির খান সিলেটে আলোচনা সমালোচনার ঝড়

Coder Boss / ৮৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ১২ মার্চ, ২০২২

রাজা মিয়া রাজ সিলেট:

সিলেট -২ আসনের সাংসদ গণফোরামের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সভাপতি মোকাব্বির খান এমপি এমপির উপর হামলা নিয়ে সিলেট চলছে আলোচনা সমালোচনার ঝড়।
জানা যায়, ১২ ই মার্চ শনিবার সকাল ১০ টায় ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবে গণফোরামের কাউন্সিল চলাকালীন সময়ে কেন্দ্রীয় গণফোরাম একাংশের সভাপতি মস্তফা মহসিন মিন্টুর সমর্থকরা ভিতরে প্রবেশ হঠাৎ অতর্কিত হামলা চালায়। এতে মোকাব্বির খান সহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

হামলায় স্বীকার মোকাব্বির খান সিলেটে আলোচনা সমালোচনার ঝড় ;

পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী শনিবার কাউন্সিল সম্পূর্ণ করতে চেয়েছিলেন মোকাব্বির খান।
এসময় কেন্দ্রীয় গণফোরামের দায়িত্ব প্রাপ্ত নেতা এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী,মস্তফা মহসিন মিন্টু কেউ-ই উপস্থিত ছিলেন না।
এবিষয়ে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি মোকাব্বির খান এমপি জানান,হিংসাত্মক ভাবে মস্তফা মহসিন মিন্টুর কর্মী সমর্থক তার লোকদের উপর হামলা চালায় ও সমাবেশে ব্যাপক ভাংচুর করে।

এদিকে সংসদ সদস্য মোকাব্বির খানের উপর হামলা নিয়ে সিলেটে চলছে আলোচনা সমালোচনার ঝড়। কেউ কেউ জানাচ্ছেন নিন্দা ও।
তবে মোকাব্বির খান এমপি তার নির্বাচনী এলাকা বিশ্বনাথ ও ওসমানী নগরে কাউন্সিল করেছেন কিন্তু এখনো কমিটি ঘোষণা করেন নি।
অনেকের অভিযোগ কাউন্সিলের নামে মিটিং করে জনসমর্থন দেখাতে চান তিনি।
এছাড়া নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে বিএনপি জোট নেতাদের ত্যাগ করে তৃতীয় পন্থা অনুসরণ করে চলেন মোকাব্বির খান।
ইতিপূর্বেই আওয়ামী লীগ সহ সবার সাথে কোনো না কোনো ভাবে ঝামেলায় জড়িয়েছেন মোকাব্বির খান।

শেষ পর্যন্ত ওসমানীনগরে কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের ভূমি অধিগ্রহণ নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও স্হানীয় আওয়ামী লীগের সাথে ঝামেলা সৃষ্টি হলে তিনি সংসদ অধিবেশনে নিজের সব কিছু আড়াল করে পুরোপুরি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও স্হানীয় আওয়ামী লীগকে দায়ী করে বক্তব্য দেন। এবং নির্বাহী কর্মকর্তার বদলি দাবি করেন।
পরবর্তীতে সেই নির্বাহী কর্মকর্তার বদলি হলেও কোনো সমাধান হয়নি। কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ আঁটকে যায়।
এছাড়া বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এস এম নুনু মিয়ার সাথে ও দূর্নীতি করেছেন এমন অভিযোগ এনে এলাকায় ঝগড়া সৃষ্টি করেন।
পরবর্তীতে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান সরাসরি জেলা প্রশাসককে তদন্ত করার নির্দেশ দিলে ও কোনো সুনির্দিষ্ট কিছু পাওয়া যায় নি।
পরবর্তীতে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান সরাসরি বিশ্বনাথে এসে স্হানীয় এমপি মোকাব্বির খান ছাড়াই ৩৮ কোটি টাকার বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের উদ্ভোধন করেন।
মোকাব্বির খান আদৌ কি সাধারণ মানুষকে নিয়ে স্বপ্ন দেখেন এই প্রশ্নে সন্দিহান রাজনীতিবিদ সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের নেতারা।
অপরদিকে স্হানীয় এমপি হিসেবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে হামলার ঘটনায় কেউ কেউ নিন্দা ও জানিয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  

বিভাগের খবর দেখুন