শিরোনাম
কুলাউড়া মুক্ত দিবসে আব্দুল লতিফ খাঁন ফাউন্ডেশনের বিশেষ আয়োজন। নবীগঞ্জ পৌরসভার ময়লার স্তূপ হাসপাতালের পাশেই, ধোঁয়া দূুর্গন্ধে স্বাস্থ্যঝুকিতে এলাকাবাসী নরসিংদীতে হিন্দু ছাত্র মহাসংঘের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য নির্বাচিত হলেন জকিগঞ্জের মুমিনুল ইসলাম চেয়ারম্যান পদে স্বামী-স্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা, ছিটকে গেলেন স্বামী সাবেক চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমান’র মৃত্যুতে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর শোক জৈন্তাপুরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান’র দাফল সম্পন্ন-বিভিন্ন মহলের শোক এখলাছুর রহমান’র মৃত্যুতে জৈন্তাপুর উপজেলা আ’লীগের শোক সাবেক চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমানের মৃত্যুতে খসর’র শোক রুস্তমপুরে ছাত্রলীগের কমিটির গঠনের লক্ষ্যে জীবন বৃত্তান্ত সংগ্রহ করা হয়
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৩৫ অপরাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

ব্লগার অনন্ত হত্যাকারী ‘ফয়সাল’ বেঙ্গালুরু থেকে গ্রেফতার।

SATYAJIT DAS / ১০৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বুধবার, ৬ জুলাই, ২০২২

সত্যজিৎ দাস (স্টাফ রিপোর্টার):

২০১৫ সালের ১২ মে সিলেট নগরের সুবিদবাজারে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয় বিজ্ঞানলেখক ও  ব্লগার অনন্ত বিজয় দাশ (৩২)-কে। পেশায় ব্যাঙ্কার অনন্ত ‘যুক্তি’ নামে একটি পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন। তিনি বাংলাদেশের জনপ্রিয় ব্লগিং প্লাটফর্ম মুক্তমনায় নিয়মিত লেখালেখির পাশাপাশি, এই ব্লগ সাইটের সম্পাদনা পরিষদের সাথেও জড়িত ছিলেন। এছাড়া বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী কাউন্সিলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বেও ছিলেন তিনি।

চলতি বছর(২০২২) জুন মাসের শুরুতে বাংলাদেশের গোয়েন্দারা জানতে পারেন যে, অনন্ত বিজয় দাশের খুনী এবং সন্ত্রাসবাদী আল-কায়দার ছায়া সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমে (এবিটি)-র জঙ্গি ফয়সাল ভারতে লুকিয়ে আছে। কলকাতা পুলিশকে তার মোবাইল নাম্বার দেওয়া হয়। এরপর এসটিএফের সহায়তায় মোবাইল ট্র্যাক করে বেঙ্গালুরুতে ফয়সালকে পায় পুলিশ। ১ জুলাই বোম্মনাহাল্লি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ৩ জুলাই কলকাতায় আনা হয়েছে তাকে। গ্রেফতার জঙ্গি ফয়সাল আহমদের বাড়ি সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার খালপাড় তালবাড়ি এলাকায়।

কলকাতা পুলিশের জেরায় জঙ্গি ফয়সাল জানিয়েছে,তারই নেতৃত্বে আল-কায়দার অসম মডিউল নিজেদের ঘাঁটি মজবুত করেছে বরাক উপত্যকায়। হত্যাকাণ্ডের সময়ে ফয়সাল ছিল ডাক্তারির ছাত্র। জড়িয়ে পড়েছিল আল-কায়দার ছায়া সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমে (এবিটি)-র সঙ্গে। বিভিন্ন মাদ্রাসায় পড়ানোর আড়ালে জেহাদি মতাদর্শ ছড়িয়েছে ফয়সাল। ফয়সালের কাছে যে পাসপোর্ট মিলেছে,সেখানে রয়েছে কাছাড়-ঘেঁষা মিজোরামের ঠিকানা। ড্রাইভিং লাইসেন্স জোগাড় করে বেঙ্গালুরু থেকে। ভোটার কার্ড শিলচরের। সেখানে তার পরিচয় শাহিদ মজুমদার। পুলিশ জানায়,জেহাদি কার্যকলাপের অভিযোগ স্বীকার করে ফয়সাল জানিয়েছে,২০১৫ সালেই সে শিলচরে পালিয়ে এসেছিল। কলকাতা পুলিশ খুনী ফয়সালকে বাংলাদেশ পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য,গত ৩০ মার্চ সিলেটের সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালে অনন্ত বিজয় হত্যা মামলার রায়ে ফয়সালসহ চারজনকে মৃত্যুদন্ড দেয়া হয়। মৃত্যুদন্ড প্রাপ্তরা হলেন কানাইঘাট উপজেলার আবুল হোসেন,খালপাড় তালবাড়ির ফয়সাল আহমদ,সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের বিরেন্দ্রনগরের (বাগলী) মামুনুর রশীদ ওরফে হারুন অর রশিদ ও কানাইঘাটের ফালজুর গ্রামের আবুল খায়ের রশীদ আহমদ। তাদের মধ্যে আবুল হোসেন,ফয়সাল আহমদ ও মামুনুর রশীদ পলাতক ছিলেন। এছাড়া,সিলেট নগরের রিকাবীবাজার এলাকায় বসবাসকারী সাফিউর রহমান ওরফে ফারাবী সাফিউর রহমানকে খালাস দেয়া হয়।

২০১৫ সালের ১২ মে সিলেট নগরের সুবিদবাজারে নুরানি আবাসিক এলাকার নিজ বাসার সামনে খুন হন অনন্ত। পেশায় ব্যাংকার অনন্ত বিজ্ঞান ও বিবর্তন নিয়ে লেখালেখি করতেন। হত্যার পর অনন্তের বড় ভাই রতেশ্বর দাশ সিলেট বিমানবন্দর থানায় অজ্ঞাতপরিচয় চারজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন। এতে বিজ্ঞান বিষয়ে লেখালেখির কারণে অনন্তকে ‘উগ্র ধর্মান্ধ গোষ্ঠী’ পরিকল্পিতভাবে খুন করেছে বলে অভিযোগ করা হয়।

মামলাটি পুলিশের কাছ থেকে অপরাধ তদন্ত বিভাগে (সিআইডি) স্থানান্তর করা হয়। সিআইডির পরিদর্শক আরমান আলী তদন্ত করে ২০১৭ সালের ৯ মে সম্পূরক অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেন। এতে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক ১০ জনকে অব্যাহতির সুপারিশ করে ছয়জনকে অভিযুক্ত করা হয়। মামলায় ২৯ সাক্ষীর মধ্যে ২৪ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

বিভাগের খবর দেখুন