আজ ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সময় : সন্ধ্যা ৭:২৯

বার : বৃহস্পতিবার

ঋতু : বর্ষাকাল

বরিশালের বানারীপাড়ার কয়েকটি জনগুরুত্বপূর্ব রাস্তার আজ চরম বেহাল অবস্থা।। জনপ্রতিনিধিদের দৃষ্টি কামনা।

 

জাকির হোসেন,
বরিশাল জেলা প্রতিনিধিঃ

বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার
সলিয়া বাকপুর ইউনিয়নের কয়েকটি জনগুরুত্বপূর্ব রাস্তার আজ চরম বেহাল অবস্থা। তার মধ্যে সলিয়া বাকপুরের মধ্য হয়ে মহিষাপোতা স্কুলের সামনে সংযোগ রাস্তাটি চলাচলের প্রায় অনুপযোগী ।

ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে বানারীপাড়া যাওয়ার জন্য যে মুল সড়কটি রয়েছে তা যতোদিন যাচ্ছে ততোই খারাপ হচ্ছে। মনে হচ্ছে দৃষ্টি দেয়ার কেহ নেই।

আনুমানিক ২০০৪ সালে ইট সরিয়ে যাতায়াতের উপযোগী করে পাকা রাস্তা করা হয়েছিলো। কিন্তু ৫/৬ বছর পরে রাস্তা থেকে পিচ উঠে রাস্তটি নষ্ট হতে শুরু করে এবং এক পর্যায়ে রাস্তাটি সম্পূর্ন নষ্ট হয়ে যায়। ঐ রাস্তা দিয়ে প্রতিনিয়ত স্কুল, কলেজ , মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের যাতায়াত সহ পৌর শহরের বন্দর বাজারে হাজার হাজার ও শ্রমজীবি মানুষ যাতায়াত করে। সর্বশেষ ২০১৪ সালের দিকে বানারীপাড়া টু বাকপুর রোড থেকে মহিষপোতা প্রবেশ পথ থেকে ধারালিয়া সৈয়দ বজলুল হক মাধ্যমিক বিদ্যালয় পর্যন্ত ইট, বালু দিয়ে পাকা করে দেয়। এই গুরুত্বপূর্ণ সড়কটিতে চলাচলের জন্য চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে এলাকাবাসীসহ চারপাশ থেকে আসা লোকজনের ।

তাছাড়া এই এলাকাটি খুবই ঘনবসতিপূর্ন, এই সড়ক পথে প্রতিদিন কয়েক হাজার পথচারী যাতায়াত করে। এই সড়কটি স্কুল সংলগ্ন হওয়ায় এই রাস্তাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ৷ এই সড়ক পথে প্রতিদিন’ই কয়েক হাজার পরিবার যাতায়াত করেন।ঐ সব মানুষের যাতায়াতের পরিবহন হলো রিক্সা।

বর্তমানে রাস্তার যে অবস্থা তাতে মানুষ হেঁটে যেতেই কষ্ট। সামান্য বৃষ্টি হলেই পানি জমে হাল চাষ করা জমির মত অবস্থা হয়ে যায়। এলাকা বাসীসহ সর্বসাধারনের চলাচলে রাস্তাটি প্রায় অনুপযোগী হওয়ার পথে।মহিষপোতা প্রবেশ পথ থেকে শুরু করে খোদাবখসা পর্যন্ত ছোট বড় প্রায় সাত টি ব্রীজ রয়েছে। প্রতিটি ব্রিজ নতুন করে করা হলেও ব্রীজের এপ্রোজে সমতলের ব্যবস্থা না থাকার সুযোগে রিক্সা চালকরাও যাত্রীদের কাছ থেকে নিচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া।

কিন্তু এখানে যাত্রীদেরও অসহায়দের মত কিছু বলার থাকে না। তাই রিক্সা চালক ও যাত্রীরা আপোষ করেই যাতায়াত করে থাকে। পাশাপাশি সন্ধ্যার পরে তেমন কোন রিক্সা ও থাকেনা রিক্সা স্টেশনে। সব মিলিয়ে ধারালিয়া বাসির চলাচলের প্রধান সড়কটি বেহাল দশা। মাননীয় সাংসদ সদস্য জনাব আলহাজ মো:শাহে আলম এমপির নিকট এলাকা বাসীর দাবী বিষয়টি তিনি তার শুনজরে এনে এবং বাস্তবতা উপলব্ধি করে রাস্তাটি সংস্কারসহ চলাচলের উপযোগী করার ব্যবস্থা করবেন।

বর্তমান সরকারের আমলে যেখানে ডিজিটাল করার প্রায়াসে সার্বিক উন্নয়নমুখী বাংলার রুপরেখা সেখানে এমন জনগুরুত্ববপূর্ন সড়কটি বড়ই বির্তকের সৃষ্টি করছে। কয়েক হাজার জনসংখ্যা চলাচলের জন্য এই সড়কটির মাঝে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় যে কোন মারাত্মক দূর্ঘনা ঘটতে পারে । তাই মাননীয় সংসদ সদস্য জনাব আলহাজ্ব মো:শাহে আলম এমপির সুদৃষ্টি ছাড়া এই রাস্তাটি চলাচলের উপযোগী করা সম্ভব নয়। এলাকাবাসীর ধারণা হয়তো যুগের পর যুগ চলে গেলেও এই চলাচলের উপযুক্ত হবে না এই সড়কটি ৷

বর্তমান বর্ষায় এই সড়ক পথটি চলাচলে আরো অনুপযোগী হয়ে দাঁড়িয়েছে। মাঝে মাঝে রিক্সা এবং বৌগাড়ি এই সড়কটির ঐ সৃষ্ট গর্তে পড়ে দূর্ঘটনা ঘটেছে ৷ প্রতিদিন এলাকাবাসীদের দীর্ঘ পথ অতিক্রম করতে হচ্ছে। মাঝে মাঝে কখনো কখনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কচি কাচা ছোট্ট শিশুদের ও বয়স্ক ব্যক্তিদের হোঁচট খাওয়ার ঘটনা দৃষ্টি গোচর হচ্ছে।

এ প্রসংগে সেখানে উপস্থিতরা বলেন আমাদের সপ্নটা সপ্ন থেকে যাবে। আমরা চাই মহিষাপোতা স্কুলে সামনের ক্লাবের রোড থেকে ফকির বাড়ি ও রাজের বাড়ি পর্যন্ত এই সংযুক্ত রাস্তাটি সংস্কার হোক। তার জন্য জনপ্রতিনিধি সহ সংশ্লিষ্ট সকলের শুদৃষ্টি কামনা করছি । এই রাস্তাটি দিয়ে ছাত্র-ছাত্রীরা স্কুল-কলেজে যাতায়াত করে তাই জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটি সংস্কারের কাজ করা খুবই জরুরি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category