শিরোনাম
আরাফার দিনে রোজা রাখার ফজিলত ঈদে ঘরমুখো মানুষের যাত্রা নিরাপদ ও নির্বিঘ্ন করতে শ্রীমঙ্গলে নিরাপদ সড়ক চাই এর উদ্যোগে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন মাধবপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ১পথচারী নিহত হজ্ব ও কুরবানির রক্ত মাংস আল্লাহর কাছে পৌঁছে না পৌঁছে এখলাস ও তাকওয়া ——— খতিব মুফতী রুহুল আমীন জৈন্তাপুরে ইমন মায়ের চিকিৎসার জন্য ৬ লাখ টাকা পরিবারের নিকট হস্থান্তর জিমাউফা আইনি সহায়তা কেন্দ্রের পক্ষ থেকে ইভটিজিং প্রতিরোধ দিবস পালিত শ্রীমঙ্গলে ভূমি সপ্তাহ উপলক্ষে ১৪৭ জন গৃহ ও ভূমি প্রাপ্ত উপকারভোগীদের মাঝে খতিয়ান হস্তান্তর কারিতাস আলোকিত শিশু প্রকল্প কতৃর্ক শিশুদের অধিকার এবং বর্তমান প্রেক্ষাপট শীর্ষক শিশু কনফারেন্স অনুষ্ঠিত শ্রীমঙ্গলে এসএসসি জিপিএ-৫ প্রাপ্ত কৃতি দুই শিক্ষার্থীকে এসএসসি-৯১ ব্যাচের সংবর্ধনা শ্রীমঙ্গলে গ্যাস সঞ্চালন লাইনের ওপর নির্মিত অবৈধ ২৫টি ঝুঁকিপূর্ণ স্থাপনা উচ্ছেদ
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ১১:১৯ পূর্বাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

পথশিশু

Coder Boss / ২৭০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০

নিরব রিমন,সীতাকুন্ড চট্টগ্রামঃঃ

আমাদের সমাজে এক পথশিশুর জীবন যুদ্ধ খুবই কঠিন। পথশিশু বেড়ে ওঠে অযত্নে অবহেলায় ফুটপাতে-রেল স্টেশনে
রাস্তার পাশে।
কোন ভালবাসার সংস্পর্শ ছাড়াই। সুবিধাবঞ্চিত কিংবা পথশিশু এই তার পরিচয়।

সুবিধাবঞ্চিত এসব শিশুদের নিয়ে নেই কারো কোনো মাথা ব্যাথা। শীত বর্ষা গরম যায় হোক না কেন সব সময় পড়ে থাকে তারা ফুটপাতে বা রাস্তার পাশে।
নেই কোন তাদের পরিচয়।
নেই আমাদের মতো মা বাবার আদর। জানা নেই তাদের কে তার বাবা, কে তার মা।
পথশিশু বা যে নামেই ডাকি না কেন। শহরের
চলার পথে অলিতে গলিতে সন্ধান মিলবে এমন হাজারো শিশুদের। বাস্তবতা তারা দেখেছে। আমাদের চেয়েও বেশি
পথ শিশুর জীবনের চাকা
দিনে দিনে বেড়েই চলেছে।
পথই হলো তাদের ঠিকানা।
জীবনের স্বপ্নগুলো থাকে তাদের অজানা। ক্ষুধার্থ পেট আর খালি পকেট বাস্তবতা শিখিয়ে দেয় তাদের।

সত্যি কি একটা শিশু।
পথশিশু হয়ে জন্ম নেয়।
কখনোই না। প্রতিটি শিশুই তার নাগরিক অধিকার নিয়ে জন্ম নেয়। আজ যে শিশু ভালো ভাবে কথা বলতে শিখেনি, তাকে ও জীবিকার তাগিদে ভিক্ষা করতে হয়। তার কাছে এখন জীবন মানে শুধু খুদা নিবারনের জন্য পথে পথে ভিক্ষা করে অসহ্য যন্ত্রণার সাথে বেঁচে থাকার লড়াই। শুধু কি তাই কিছু অসাধু ব্যবসায়ী পথ শিশুদের ও নিয়ে শুরু করেছে ব্যবসা। আমাদের দেশের পথ শিশুদের পাচার করে দেয়া হচ্ছে, অন্য দেশে। শিশুরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। কিন্তু আমাদের দেশে একটি বড় অংশ পরিচিত পথশিশু হিসেবে। যাদের দিন যাপিত হয় শুধুমাত্র এক বেলা খাবার সংগ্রহের চেষ্টায়।
কিছু কিছু শিশু এমনও হয়, যাদের কল্পনার জগৎটা শুধুই তিনবেলা পেটপুরে খাওয়ার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ৷
একথালা গরম ধোঁয়া ওঠা ভাত আর এক টুকরো মাছ কিংবা একটা গোটা ডিম মানেই পিকনিক। শিশুদের মানসিক বিকাশ হওয়ার জন্য যা যা দরকার এই পথশিশু গুলো সবকিছু থেকে বঞ্চিত হয়।
পায় না ভালো আচরণও।
শুধুই জোটে অবহেলা আর একরাশ অসম্মান। করোনা সংকটে অনেক অসহায় মানুষের সাথে দেশের অনেক পথশিশু সকরুণ দিন জীবন যাপন করছে। এমন দূর ব্যবস্থার জন্য সমাজ ও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থা এর দায় কোনো ভাবেই এড়াতে পারে না।

দেশের সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সুরক্ষায় বর্তমানে বাংলাদেশের অনেক প্রতিষ্ঠান স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন এগিয়ে আসছে।
এ রকম ভাবে আমাদের সমাজের সামর্থ্যবান মানুষরা যদি একটু এগিয়ে আসে। তাহলে পথশিশু বলে কেউ থাকবে না। আমার যদি একটি শিশুকে সুরক্ষা দিয়ে নিশ্চিত করতে পারি। তাহলে দেশজুড়ে কোন পথশিশু অসহায় থাকবে না। আসুন যতটুকু সামর্থ্য তা দিয়ে অসহায় মানুষের পাশে অসহায় পথ শিশুর পাশে দাঁড়ায়।

লেখক
সরওয়ার উদ্দিন নিরব রিমন
সদস্যঃ বাংলাদেশ তরুণ কলাম লেখক ফোরাম
শিক্ষার্থী ছোট দারোগার হাট তাহের মঞ্জুর কলেজ
সীতাকুন্ড চট্টগ্রাম
01881402028
nirobremon152@gmail.com


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

বিভাগের খবর দেখুন