শিরোনাম
বড়লেখায় সরকার বিরোধী ক্যাডার কাজী এনামুল হকের দৌরাত্ম ছাতকে আইডিয়াল ডেভেলপমেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে খাবার পানি ও সাল্যাইন বিতরণ মৌলভীবাজারে প্রিজাইডিং অফিসার সহ দুইজন গ্রেফতার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েই কামাল খসরুর বাসভবনে লিয়াকত আলী বিশাল ব্যবধানে বিজয়ী হয়েছেন, তাহিরপুর উপজেলা নির্বাচনে  আলোচিত প্রার্থী মো:আফতাব উদ্দিন জৈন্তাপুরে উৎসব মূখর পরিবেশে শান্তিপূর্ণ  ভাবে ভোট গ্রহন সম্পন্ন- বিজয়ী হলেন যারা ছাতকে সহিংসতা মুক্ত উপজেলা নির্বাচনের দাবিতে যুব ফোরামের মানববন্ধন দোয়ারাবাজারে গাঁজা ও ইয়াবাসহ তিনজন আটক শাহপরান সমাজ কল্যাণ সংস্থার কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা একটি নিখোঁজ সংবাদ
শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ০৯:৩৫ পূর্বাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

বানারীপাড়ার অসহায় তহমিনা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার ও তসিলদারের হাত হতে বাচঁতে ডি আই জি বরাবর লিখিত অভিযোগ

সিলেট নিউজ ডেস্ক / ১৪৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৭ জুলাই, ২০২৩

স্ট্যাফ রিপোর্টার:

বরিশালের বানারীপাড়া পৌরসভার ০৭ নং ওয়ার্ডের ভূমিহীন অসহায় তহমিনা বেগম ভূমিদস্যু ও ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার ও তসিলদারের হাত হতে বাঁচতে
ডি আই জি, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
বানারীপাড়া পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের ১৫০ বছরের হিন্দু সম্প্রদায়ের পুরানো পুকুর যা বর্তমানে সরকারের এবং ঐ পুকুরের পানি জনস্বার্থে ব্যবহৃত হত সেই পুকুরটি দখলমুক্ত ও বানারীপাড়া ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার ও তসিলদারের স্বেচ্ছাচারিতা, হুমকি দামকির হাত হতে রক্ষা পেতে ভূমিহীন তহমিনা এই অভিযোগ পত্র দায়ের করেন। অভিযোগে জানা যায় দূর্ঘটনায় এক হাত ভাঙ্গা মালেকের স্ত্রী তহমিনা বেগম মানুষের বাসায় কাজ করে সরকারের দেয়া জমিতে ৮ সদস্যের সংসারে ভরন পোষন করে। মালেকের পূর্ব পুরুষরা ৫৭ বছর পূর্বে ৭ নং ওয়ার্ডের বাসতলায় সরকারের কাছ থেকে ৯৯ বছরের ডি সিয়ারের মাধ্যমে তার বংশপরাক্রমায় তহমিনাসহ ৮ টি অসহায় পরিবার বসবাস করে আসছে। পৌর শহরের সর্বপ্রথম হোল্ডিং নাম্বরটি ও তহমিনা বেগমের। তার হোল্ডিং নং ০১। তহমিনাসহ ৮ পরিবারের ডিসিআর কৃত জমির উপর লোলুপ দৃষ্টি পরে এলাকার জাহিদুল ইসলাম রিপন ঢালী ও নাঈম মোল্লার। তাদেরকে সহায়তা করছে বানারীপাড়া পৌরসভার সার্ভেয়ার সুমন ও তসিলদার বিমল, এমনটাই অভিযোগ করেন তহমিনা আক্তার। সার্ভেয়ার সুমন ও তসিলদার বিমল তহমিনার কাছে এক লাখ টাকা ঘুষ দাবী করে যা দিতে না পারায় তহমিনা তার স্বামী ও সন্তানদের উপর ক্ষিপ্ত সার্ভেয়ার সুমন ও তসিলদার বিমল। যা কান্না জনিত কন্ঠে তহমিনা বলেন। সার্ভেয়ার সুমন ও তসিলদার বিমল এতোটাই ক্ষিপ্ত যে তহমিনা বা তার স্বামির কোন দোকান না থাকা স্বত্ত্বেও বিগত দিনের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিপন কুমার সাহাকে মিথ্যা তথ্য দিয়ে তহমিনার স্বামী মালেকের নামে দোকান উচ্ছেদের নোটিশ করে। নোটিশ পেয়ে মালেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিপন কুমার সাহার কাছে গেলে মে সার্ভেয়ার সুমনকে ডেকে এর কারন জানতে চায় এবয় বকাযকা করে। কিন্তু কতটা ক্ষিপ্ত থাকলে এতোবড় চক্রান্ত করা যায় তা এই কর্মকান্ড দেখেই বোঝা যায়। এখানেই ক্ষান্ত নয় সার্ভেয়ার এবং তসিলদার। তহমিনা জানায় ঝড়ে তা দেবরের ঘরের চালের অংশবিশেষ ক্ষতিগ্রস্থ হলে সেটা মেরামত করতে গেলে বাধা দেয় সার্ভেয়ার সুমন ও তসিলদার বিমল। বলে ইউ এন ও তাদের পাঠয়েছে। কাগজ দেখতে চাইলে থানায় লিখিত একটি দরখাস্ত দেখতে পাওয়া যায়। থানায় লিখিত অভিযোগ কিভাবে সার্ভেয়ার সুমন ও তসিলতার বিমল নিয়ে আছে। কেনইবা তাদের এতো আগ্রহ। কিছু হলেই সার্ভেয়ার সুমন ও তসিলতার বিমল তহমিনাকে হুমকি দেয় তোমার ডিসিআর বাতিল করে দিব।
কোন ক্ষমতা বলে সার্ভেয়ার সুমন ও তসিলদার বিমল অসহায় হতদরিদ্র তহমিনাকে বিভিন্নভাবে হয়রানি করছে। তহমিনা লিখিত অভিযোগে জানায় ০৭ ন১ ওয়ার্ডের কুন্দিহার মৌজায় ৩৮৩ খতিয়ানে ৩১১ দাগের ১৫০ বছরের হিন্দুরের ৭৭ শতাংশ পুকুরের মালিক সরকার। শত বছর পর্যন্ত বানারীপাড়ার সবাই জানে সরকারী পুকুর, পুকুরের পাশ থেকে ২/১ শতাংশ জমি সরকারের কাছ থেকে ডিসিয়ারের মাধ্যমে কেহ কেহ ভোগ দখল করছে। কিন্তু হঠাৎ করে আলাউদ্দিনের চ্যারাকের মত ঐ পুকুরের মালিক হয়ে গেল ঐ ওয়ার্ডের বাসিন্ধা জাহিদুল ইসলাম রিপন ঢালী ও নাঈম মোল্লা। এলাকার বীরমুক্তিযোদ্ধা শাহবুদ্দিনের ২ শতাংশ জমি ঐ পুকুরের পাশে থাকায় সেখানে সরকার থেকে দেয় ঘর নির্বানের জন্য পুকুরটি বালু দিয়ে ভরাটের প্রয়োজন দেখা দিলে সেই সুযোগের সদ্বব্যবহার করে রিপন ঢালী ও নাঈম মোল্লা। আর সেই সুযোগে পুরু পুকুরটি নিজেদের দখলে নিয়ে যায় যা ঐ সময় বিভিন্ন পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। সম্প্রতি অসহায় তহমিনা বেগম সরকার হতে দুটি ছাগল পায়। সংকীর্ন জায়গায বসবাসের পর অতিরিক্ত জায়গা না থাকায় পুকুরের দক্ষিন পাশে ১৮ শতাংশ সরকারী জমি পড়ে থাকায় সেখানে অস্থায়ী ছাগলের ঘর নির্মান করে তহমিনা বেগম। আর তাদের মাথা খারাপ হয়ে যায় রিপন ঢালী ও নাঈম মোল্লার। সাথে সাথে সার্ভেয়ার ও তসিলদার এনে হুমকি ধামকি সহ তহমিনাকে বেদরক মারধর করে। মানধরের স্বিকার তহমিনা দীর্ঘদিন বানারীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন ছিল। তহমিনা জানায় হাসপাতালে ভর্তি অবস্থায় সার্ভেয়ার ও তসিলদার আমার ছেলেকে গাজাসহ ধরিয়ে দিবে বলে হুমকি দেয়। আর সেই দিনই কুট কৌশলে আইনের ফাকে ফেলে আমার ছেলেকে গ্রেফতার করায়। তহমিনার উপর সার্ভেয়ার ও তসিলদান এতো ক্ষিপ্ত কেন এমনটা সাংবাদিকরা জানতে চাইলে তহমিনা বলেন সার্ভেয়ার সুমন আমার কাছে এক লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী করছিল। আমি অসহায় মানুষ কোথা থেকে এতো গুলা টাকা দিব। তাই দিতে অপারগতা করায় আমার উপর তাদের ক্ষোভ এটা আমার আশংকা। নিরুপায় তহমিনা এই জায়গার জন্য ৪ টি মিথ্যা মামলায় সে সহ তার স্বামী এ সস্তান আসামী হয়। তহমিনা বেগম ভূমি দস্যুও সার্ভেয়ার সুমন ও তসিলদার বিমলের বিরুদ্ধ অভিযোগ তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, বিভাগীয় কমিশনার,এস পি, ডি আইজি বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।
এ প্রসংগে অভিযুক্তদের মোবাইল করলে ফোন রিসিভ না করায় তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  

বিভাগের খবর দেখুন