আজ ২০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৫ই ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সময় : রাত ৪:৩৪

বার : রবিবার

ঋতু : হেমন্তকাল

কুলাউড়ায় এম এম শাহীনের আগমনে সংবর্ধনা ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত।

সত্যজিৎ দাস(স্টাফ রিপোর্টার):

স্বদেশ প্রবাসের প্রিয় মুখ মৌলভীবাজার-২ কুলাউড়া আসন থেকে নির্বাচিত সাবেক এমপি ও ঠিকানা গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এম শাহীন-র আগমনে (২৯ অক্টোবর ২০২১) শুক্রবার মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার স্থানীয় পেকুরবাজারে ঐক্যবদ্ধ কাদিপুরবাসীর আয়োজনে কুলাউড়ার মাটি ও মানুষের নেতা ও কাদিপুর এর রত্নগর্ভ জনাব এম এম শাহীন মহোদয়’কে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে কাদিপুর সহ কুলাউড়ার সর্বস্তরের নাগরিক উপস্থিত ছিলেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন মেহেদী হাসান খালিক।
এর আগের দিন বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) রাতে কুলাউড়া প্রেসক্লাবের আয়োজনে স্থানীয় এক অভিজাত হোটেলে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় কুলাউড়া প্রেসক্লাবের সভাপতি আজিজুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী আবু সাঈদ ফুয়াদের উপস্থাপনায় সংবর্ধিত অতিথির বক্তব্যে এম এম শাহীন প্রেসক্লাব কুলাউড়ায় ১ লক্ষ টাকা অনুদান প্রদান করেন।
Meet&Greet সভায় সাবেক এমপি ও ঠিকানা গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এম শাহীন বলেন, ‘ সর্বদা কুলাউড়ার মানুষের কল্যাণে কাজ করেছি, কখনও সংবাদপত্র, কখনও সংগঠন,কখনও রাজনীতির মাধ্যমে।
আমার এ পথচলায় আমি সবসময় সমাজের একটি অংশের মানুষের কাছ থেকে সব সময়ই সহযোগিতা পেয়েছি,তারা হচ্ছেন সাংবাদিক সমাজ। সাংবাদিকরা তাদের লিখনীর মাধ্যমে আমার কর্মকান্ড সমাজের ও জাতির সামনে তুলে ধরেছেন। সেজন্য আমি এই সাংবাদিকদের কাছে চিরঋণি ও কৃতজ্ঞ।
Meet&Greet-এ এম.এম শাহীন আরও বলেন,এলাকাবাসী ২০০১ সালের জাতীয় নির্বাচনে প্রভাবশালী নেতাকে পরাজিত করে আমাকে বিজয়ী করেছিলেন। আমি জনগনের আমানতের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সবসময় মানুষের পাশে থেকে কাজ করেছি। কিন্তু বসন্তে কোকিল কিছু নেতা আছেন,যিনি কুলাউড়ায় আসেন শুধু মানুষের ভোট নিতে। নির্বাচিত হয়ে আবার চলে যান ঢাকায়। এরা দু:সময়ে মানুষের কথা ভাবেন না।
বর্তমান সংসদ সদস্যের প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি আরও বলেন, তিনি ঢাকায় বিভিন্ন বিয়েতে যাচ্ছেন,সংসদে যাচ্ছেন, বিভিন্ন জায়গায় যাচ্ছেন কিন্তু কুলাউড়ায় আসছেন না। তাঁর নিযুক্ত ১২ জন খলিফা দিয়ে কুলাউড়ার মানুষকে ধোঁকা দিয়ে চলছেন। ভোট মানুষ আপনাকে দিয়েছে ,না ঐ ১২ জন খলিফাকে দিয়েছেন!শাহীন বলেন,যার জন্ম কুলাউড়ায় হয় নাই,যার স্কুল ও কলেজ জীবন কুলাউড়ায় কাটেনি তাঁর কুলাউড়ার প্রতি অবজ্ঞা থাকাই স্বাভাবিক। বিগত ৩ বছরে তিনি এমপির দায়িত্ব কতটুকু পালন করেছেন?’
এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুলাউড়া সরকারী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ সৌম্য প্রদীপ ভট্রাচার্য সজল, লংলা আধুনিক মহাবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আতাউর রহমান চন্দন, নবীন চন্দ্র মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমির হোসেন, মহতোছিন আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফয়জুর রহমান ছুরুক, প্রেসক্লাব কুলাউড়ার প্রতিষ্টাতা সভাপতি ও আমাদের নতুন সময় এর জেলা প্রতিনিধি স্বপন কুমার দেব রতন, সমাজসেবক হাবিবুর রহমান টুটু।
এছাড়াও বক্তব্য রাখেন কবি ও সাহিত্যিক ইব্রাহিম খলিল, জেলা সাংবাদিক ফোরামের সহ সভাপতি এম মছব্বির আলী, প্রেসক্লাব, কুলাউড়ার সিনিয়র সহ সভাপতি ময়নুল হক পবন, সাংবাদিক সমিতির সাবেক সভাপতি মোক্তাদির হোসেন, এম এম শাহীনের পুত্র রাফিদ শাহিন ও ডেইলি ষ্টারের প্রতিনিধি মিন্টু দেশওয়ারা, প্রেসক্লাব কুলাউড়ার নির্বাহী সদস্য বিশ্বজিৎ দাস, সাংবাদিক আশীষ কুমার ধর, প্রেসক্লাবকুলাউড়ার সাংগঠনিক সম্পাদক আলাউদ্দিন কবির, যুগ্ম সম্পাদক তাজুল ইসলাম, সাংবাদিক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম চৌধুরী, আজকের পত্রিকার প্রতিনিধি এস আলম সুমন, কালের কন্ঠের মাহফুজ শাকিল, সমকাল প্রতিনিধি সৈয়দ আশফাক তানভীর, দৈনিক আমার সংবাদের এইচ ডি রুবেল, প্রিয় কুলাউড়ার সম্পাদক একেএম জাবের, নাজমুল বারী সোহেল, দৈনিক জাগরণের এনামুল ইসলাম প্রমুখ।
এদিকে প্রেসক্লাব কুলাউড়ার সদস্য সদ্য প্রয়াত মরহুম শাকির আহমদ স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করে মতবিনিময় সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category