শিরোনাম
নবীগঞ্জ পৌরসভার ময়লার স্তূপ হাসপাতালের পাশেই, ধোঁয়া দূুর্গন্ধে স্বাস্থ্যঝুকিতে এলাকাবাসী নরসিংদীতে হিন্দু ছাত্র মহাসংঘের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সদস্য নির্বাচিত হলেন জকিগঞ্জের মুমিনুল ইসলাম চেয়ারম্যান পদে স্বামী-স্ত্রীর প্রতিদ্বন্দ্বিতা, ছিটকে গেলেন স্বামী সাবেক চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমান’র মৃত্যুতে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর শোক জৈন্তাপুরে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান’র দাফল সম্পন্ন-বিভিন্ন মহলের শোক এখলাছুর রহমান’র মৃত্যুতে জৈন্তাপুর উপজেলা আ’লীগের শোক সাবেক চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমানের মৃত্যুতে খসর’র শোক রুস্তমপুরে ছাত্রলীগের কমিটির গঠনের লক্ষ্যে জীবন বৃত্তান্ত সংগ্রহ করা হয় বিহঙ্গের উদ্যোগে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ সম্পন্ন..!!
রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:০৫ অপরাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

ইলিশ যেদিন রান্না করি,সেই দিনটি ঈদের দিন।-তসলিমা নাসরিন।

Daily Sylhet News / ৯৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ৯ জুলাই, ২০২২

সিলেট নিউজ অনলাইন ডেস্ক:

তসলিমা নাসরিন বাংলাদেশের একজন বিতর্কিত সাহিত্যিক ও চিকিৎসক। বিংশ শতাব্দীর আশির দশকে একজন উদীয়মান কবি হিসেবে সাহিত্যজগতে প্রবেশ করে তসলিমা এই শতকের শেষের দিকে নারীবাদী ও ধর্মীয় সমালোচনামূলক রচনার কারণে আন্তর্জাতিক খ্যাতি লাভ করেন। তিনি তার রচনা ও ভাষণের মাধ্যমে লিঙ্গসমতা,মুক্তচিন্তা,নাস্তিক্যবাদ এবং ধর্মবিরোধী মতবাদ প্রচার করায় ইসলামপন্থীদের রোষানলে পড়েন ও তাদের নিকট হতে হত্যার হুমকি পেতে থাকায় ১৯৯৪ খ্রিষ্টাব্দে বাংলাদেশ ত্যাগ করে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাস করতে বাধ্য হন। এখন তিনি কয়েকদিন কলকাতা, কয়েকদিন দিল্লি আবার অষ্ট্রেলিয়াও থাকেন।

বাংলাদেশের নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন তার ভেরিফাইড ফেসবুকে ০৯ জুলাই শনিবার একটি স্ট্যাটাসের মাধ্যমে পদ্মার ইলিশের গুণগান গাইলেন ও স্মৃতিতে এখনও পদ্মার ইলিশ আছে তা স্পষ্ট করে বললেন। তার লেখা ফেসবুক স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো,   ‘ কাল সন্ধ্যায় (০৮ জুলাই শুক্রবার) মাছের বাজারে গিয়ে দুটো ইলিশ কিনলাম। বিক্রেতারা দাবি করে এ বাংলাদেশের ইলিশ। জানিনা সত্যিই বাংলাদেশের কিনা।

তবে গঙ্গার হোক,পদ্মার হোক, এই সিজনে ইলিশ না খেলে পুরো বছরটাতেই মনে হবে কী যেন খাইনি,কী যেন খাইনি। ষোলোশ’ টাকা কিলো ইলিশের। দুটোরই ওজন এক কিলো দেড়শ’ মতো। ঘরে এনে কয়েক টুকরো রান্না করলাম। নানা রকম রান্না আছে ইলিশের। তবে আমার সবচেয়ে ভালো লাগে কালোজিরে কাঁচালঙ্কার ফোড়ন দেওয়া পাতলা ঝোলের ইলিশ। রাতেই খেলাম। মাছও এত সুস্বাদু হতে পারে তা ইলিশ না খেলে বোঝা দায়,প্রাণ জুড়োলো।

যখন বাংলাদেশে ছিলাম,ইলিশ এত খেতাম যে ইলিশকে খুব স্পেশাল কিছু মনে হতো না। এখন সিজনে ইলিশ জোটে,ভালো ইলিশ কদাচিৎ জোটে,তাই ভালো কোনও সুস্বাদু ইলিশ যেদিন রান্না করি,সেই দিনটি মনে হয় ঈদের দিন,স্পেশাল। আজ আমার ঈদ,আজ (০৯ জুলাই শনিবার) দুপুরে,রাতে,দু’বেলায় ইলিশ খাবো। ঘড়ি দেখছি,কখন লাঞ্চের সময় হবে। লাঞ্চ শেষ হলে ঘড়ি দেখবো ডিনারের সময় কখন হবে,কারণ তখনও ইলিশ খাবো ‘।

 

সিলেট নিউজ/এসডি.


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

বিভাগের খবর দেখুন