আজ ৩১শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

সময় : রাত ৩:০৮

বার : শুক্রবার

ঋতু : গ্রীষ্মকাল

হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গে দুঃসাহসিক ডাকাতির অভিযোগ।

রিতেষ কুমার বৈষ্ণব হবিগঞ্জ (স্টাফ রিপোর্টার)

হবিগঞ্জ জেলার বানিয়াচং উপজেলার ৪নং দক্ষিণ পশ্চিম ইউনিয়ন এর রায়ের পাড়ায় ০৫/০৮ ২০২০ রাত আনুমানিক ০২ ঘটিকায় এই ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ এনেছেন গকুল রায়।

উপজেলার ৪ নং ইউনিয়ন এর রায়ের পাড়ায় গকুল রায়ের বাড়িতে গতরাত আনুমানিক ০২ ঘটিকার সময় রান্না ঘরের চুলার উপরে ইট সিমেন্ট এর তৈরি ঢাকনা খুলে ৫ -৬ জনের সংঘবদ্ধ একদল ডাকাত রায়ের পাড়ার গকুল রায়ের ঘরে প্রবেশ করে হাত পায়ে বেঁধে স্বর্ণালংকার সহ নগদ পঞ্চাশ হাজার টাকা ডাকাতি করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ এনেছেন তিনি।

চ গকুল রায়ের অভিযোগ ডাকাত দল দা এবং ছুরি দেখিয়ে চেচামেচি নাকরার জন্য প্রাণ নাশের হুমকি দেয় এবং টাকা পয়সা, স্বর্ণালঙ্কার যা আছে সব কিছু ডাকাতদের হাতে তুলে দিতে বলে।

গকুল রায়ের স্ত্রী ভয়ে নিজের শরীর থেকে দুটি স্বর্ণের কানের দুল হাতের রোলি খুলে দিতে বাধ্য হন, যার আনুমানিক মূল্য ৪০ — ৫০ হাজার টাকা হবে বলে জানিয়েছেন। এছাড়াও ব্যাংক থেকে তুলে আনা ড্রয়ারে রাখা নগদ পঞ্চাশ হাজার টাকা ডাকাতি করে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ এনেছেন এবং ড্রয়ারের কাছেই চাবি রাখা ছিল বলে জানিয়েছেন গকুল রায়।

উল্লেখ্য গকুল রায় একজন স্কুল শিক্ষক এবং উনার স্ত্রী বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের সরকারি কর্মচারী।

নগদ টাকার ডকুমেন্ট সম্পর্কে জানতে চাইলে বলেন ব্যাংক চেক আছে তবে ব্যাংক চেক খোঁজে বের করতে হবে।

এবিষয়ে এলাকাবাসীর কাছে জানতে চাইলে তারা সকাল বেলা বিষয়টি গকুল রায়ের কাছে জানতে পেরেছেন বলে জানিয়েছেন।

ঘটনার খবর পেয়ে বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম চৌধুরী ইউ এন ও মাসুদ রানা ইউপি চেয়ারম্যান রেহাছ মিয়া ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে এসেছেন এবং বলেছেন এই বিষয়ে সর্বোচ্চ আইনি কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই বিষয়ে বানিয়াচং থানার অফিসার ইনচার্জ এমরান হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান আজমিরীগঞ্জ বানিয়াচং সার্কেল শেখ মোহাম্মদ সেলিম স্যার র দিক নির্দেশনা অনুযায়ী তিনি নিজে এবং তদন্ত ওসি প্রজিত কুমার দাস, এস. আই শিমুল রায় সহ বিশেষ টিম ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে এসেছেন এবং সঠিক তদন্তের মাধ্যমে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এই বিষয়ে বানিয়াচং আজমিরীগঞ্জ সার্কেল শেখ মোহাম্মদ সেলিম’ র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি নিজেই ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে এসেছেন বলে জানান , ঘটনার বিবরন এবং তদন্ত অনুযায়ী এটা একটি সাধারণ চুরির ঘটনা হতে পারে বলে ধারণা করছেন তিনি। তদন্ত প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে।

অপরাধ নির্মূল করতে সচেতন জনগণের সহযোগিতা পেলে আর যে কোন ঘটনার সঠিক অভিযোগ করা হলে খুব অল্প সময়ের মধ্যে সকল প্রকার অপরাধীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনতে পুলিশ বিশেষ ভুমিকা রাখবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category