শিরোনাম
কিশোরগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ শিক্ষার্থী নির্বাচিত হয়েছেন স্বরেয়া হোসেন বর্ষা মানুষ মানুষের জন্য, সকলে বন্যার্ত অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানো উচিত…এটিএম হামিদ প্রাকৃতিক দূর্যোগে দিশেহারা সিলেট, থৈথৈ করে বাড়ছে পানি কানাইঘাটে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলের দ্বায়িত্বশীলরা পানি বিশুদ্ধ করন ট্যাবলেট নিয়ে উপজেলার বন্যাগ্রস্ত মানুষের পাশে বানিয়াচংয়ে বাংলা টিভি’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন সরকার বন্যার্তদের পাশে আছে ত্রাণের অভাব হবেনা— এমপি মানিক সিলেটে বন্যা দুর্গত এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন ঘাটাইল উপজেলায় আশ্রয়ন প্রকল্পের অধীনে বরাদ্দকৃত ঘরে ফাটল ছাতকে বন্যার অবনতি,নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত উপজেলা সদরের সাথে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন গোবিন্দগঞ্জে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুর্ধ১৭ এর সেমিফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত
শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৬:৩৪ অপরাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

রাত পোহাতেই এক বছরে বিএএফ শাহীন কলেজ ক্যাম্পাস মৌলভীবাজার,

Coder Boss / ২৭২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৩ মে, ২০২১

বিশেষ প্রতিনিধিঃ-
২০২০ সালের ২৩ মে বিএএফ শাহীন কলেজ শমশেরনগরের ৩ ছাত্র মিলে একটি ফেসবুক গ্রুপ চালু করে৷ নাম দেয় বিএএফ শাহীন কলেজ ক্যাম্পাস। আজ দেখতে দেখতে সকলের জনপ্রিয় এই গ্রুপটি এক বছরে পা রাখলো।
বিএএফ শাহীন কলেজ ক্যাম্পাসের এক এডমিন আদনান জাকারিয়া বলেন– “শিক্ষক ছাত্র কর্মচারী অভিভাবক সবার কাছে জনপ্রিয় নাম হিসেবে দাঁড়িয়েছে এ কমিউনিটি। ২০২০ সালে ঈদুল ফিতরের ২ দিন আগে ফারহান সাদিক রাফি ভাইয়ের নেতৃত্বে এই গ্রুপ স্থাপন করি। সাথে ছিলেন সৌরভ মোহাম্মদ ভাই। হাজারো স্মৃতি জড়িয়ে আছে এ গ্রুপের সাথে। এখনো ভাবলে অবাক লাগে কিভাবে কেটে গেলো এক বছর। আমি সেই শুরু থেকে আছি এর সাথে। এর আগে মৌলভীবাজার কমিউনিটি শ্রীমঙ্গল কমিউনিটি সহ অনেক জায়গায় কাজ করেছি। তবে বিএএফ শাহীন কলেজ ক্যাম্পাস মানে হৃদ স্পন্দন বন্ধন। আমি যখন কাজ শুরু করি তখন সদস্য ছিলো ৪৪ জন অনেক কষ্টে আজ আমরা ৫,৫০০+ সদস্যের পরিবার সারা বাংলায় । সবার ভালোবাসা ছিলো বলে এতটুকু সম্ভব হয়েছে। আমাদের সাথে বিভিন্ন শাহীনের ভাইবোনেরা কাজ করেছেন। সবার নাম বলা দুষ্কর। কিছু নাম বলি। ঢাকা থেকে তাওহীদ ভাই, ফারিহা আপু, মেজবা।কুর্মিটোলা থেকে ফাহিম ভাই। বগুড়া থেকে মানজুম, বর্ণ, সিহাত, কামরুল, শাবাব। চট্টগ্রাম থেকে নিশাত ভাই,প্রিন্স ভাই,তানভীর ভাই। পাহাড়কাঞ্চনপুর থেকে তারেক ভাই, রিক্তা আপু, রিমি। শমশেরনগর থেকে সৈকত ভাই,সা-দ ভাই,তমাল, রিজা, হলি,নাজমুল,ওয়াহিদা।যশোর থেকে সৌমিক ভাই, প্রিয়ন্তি দিদি, মোহনা, মিনহাজ ভাই।
সকলের প্রতি ভালোবাসা রইলো।
এছাড়া শিক্ষক শিক্ষিকাদের দোয়া ও সমর্থন সবসময় পাশে ছিলো। ইন শা আল্লাহ, আমরা একদিন অনেক বড় প্লাটফর্ম এ পরিণত হব,
দিন শেষে যারা বিএএফ শাহীন কলেজ ক্যাম্পাসের সাথে ছিলেন সকলকে আবারো শুভ কামনা জানাই।
অনেক বাঁধার মুখে থেকে আমরা সর্বদা ভালো কিছুর চেষ্টা করেছি। এই প্লাটফর্ম গঠনের মূল উদ্দেশ্য শাহীনের স্মৃতিধারণ। মানুষের কাছে শাহীনের বাণী পৌছে দেয়া আর্তমানবতার সেবা দেওয়া অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো। আমাদের শমশেরনগর থেকে সকল শিক্ষক সর্বাত্মক সমর্থন করছেন। তবে যারা সর্বোচ্চ সহযোগিতা করেছেন তাদের কথা না বললেই নয়। আমাদের কলেজ ইনচার্জ রইস উদ্দিন ঢালী স্যার ও শ্রদ্ধেয় ওয়াসিম আকরাম স্যার।

সবার ভালোবাসা একদিন কাজে লাগবে। ভালো থাকবেন এবং নিজের খেয়াল রাখবেন। এই বিএএফ শাহিনের সকল সদস্য সমাজের সর্বস্তরের মানুষের পাশে থেকে সেবা দিয়ে যাবে এই মতবাদ ব্যক্ত করেছেন তারা এবং সকলের সুস্থ জীবন সুখের হউক মানবতার জয় হউক সকল সদস্যদের প্রচেষ্টায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

বিভাগের খবর দেখুন