শিরোনাম
সিবিসাস’-এর পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে কুলাউড়ার দুই কৃতি সন্তান ‘সেলিম ও খলিল’। বাহুবলে এড: মো: আলমগীর চৌধুরী’র শীতবস্ত্র বিতরণ। ত্রিশটি মামলায় ২৮৩ ওয়ারেন্ট নিষ্পত্তি করেছে মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ। দোয়ারাবাজারে আশ্রয়ন প্রকল্পের প্রতি ঘরে গিয়ে কম্বল বিতরণ জগন্নাথপুরে পৃথক অভিযানে ১৮২৯ পিচ ইয়াবা সহ বিপুল পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার গ্রেফতার ৩ শ্রীমঙ্গলে আনসার ভিডিপি প্রশিক্ষককে বদলীজনিত বিদায়ী সংবর্ধনা। তাড়াইলে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ইমাম সম্মেলন অনুষ্ঠিত শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের সভাপতি ‘বিশ্বজ্যোতি’ ও সম্পাদক ‘সোহেল’ নির্বাচিত। দোয়ারাবাজারে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে সংঘর্ষে আহত ৬। মৌলভীবাজারে “সিএমএফ”-এর উদ্যোগে শীত বস্ত্র বিতরণ।
শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:৩৩ পূর্বাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

কেশবপুরে বিধি-নিষেধ অমান্য করায় ব্যবসায়ীসহ ১০ ব্যক্তিকে অর্থদন্ড

Coder Boss / ৪৫৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শনিবার, ৩১ জুলাই, ২০২১

এস কে আর সুমন, যশোর জেলা প্রতিনিধি:

কেশবপুরে সরকার ঘোষিত বিধি-নিষেধ অমান্যকারী ব্যক্তিদের অর্থদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। শনিবার দুপুরে পৌর শহরসহ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পৃথক পৃথক ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এম এম আরাফাত হোসেন এবং উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ইরুফা সুলতানা। বিধি-নিষেধ বাস্তবায়নে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে ১০ টি মামলার বিপরীতে ১০ হাজার ৩০০ টাকা অর্থদন্ড প্রদান করেন।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, কেশবপুর পৌর শহরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে সরকার ঘোষিত বিধি-নিষেধ অমান্য করার অপরাধে ব্রহ্মকাটি এলাকার আব্দুল লতিফকে ২ হাজার টাকা, সাবদিয়া এলাকার অরুন কুমার পালকে ১ হাজার টাকা, আলামিনকে ২০০ টাকা অর্থদন্ড করা হয়।

অপর দিকে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ইরুফা সুলতানা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে সরকার ঘোষিত বিধি-নিষেধ অমান্য করার অপরাধে উপজেলার পাঁজিয়া এলাকার মান্নানকে ২০০ টাকা, শাহীন আলমকে ৫০০ টাকা, আতিয়ার রহমানকে ৫০০ টাকা, কেশবপুর এলাকার কালিপদকে ২০০ টাকা, রবিন দাসকে ২০০ টাকা, লিটনকে ৫০০ টাকা অর্থদন্ড করা হয়। একই অভিযানে বিধি-নিষেধ অমান্য করে দোকান খোলা ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য তৈরি ও বিক্রির অপরাধে মিষ্টির দোকানের মালিক বাহারুলকে ৫ হাজার টাকা অর্থদন্ড করা হয়। সর্বমোট ১০ মামলার বিপরীতে ১০ হাজার ৩০০ টাকা অর্থদন্ড করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকালে সেনাবাহিনী দায়িত্বপ্রাপ্ত টিম, কেশবপুর থানা পুলিশ ও আনসার সদস্যগণ সহযোগিতা করেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

বিভাগের খবর দেখুন