শিরোনাম
মানুষ মানুষের জন্য, সকলে বন্যার্ত অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়ানো উচিত…এটিএম হামিদ প্রাকৃতিক দূর্যোগে দিশেহারা সিলেট, থৈথৈ করে বাড়ছে পানি কানাইঘাটে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলের দ্বায়িত্বশীলরা পানি বিশুদ্ধ করন ট্যাবলেট নিয়ে উপজেলার বন্যাগ্রস্ত মানুষের পাশে বানিয়াচংয়ে বাংলা টিভি’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন সরকার বন্যার্তদের পাশে আছে ত্রাণের অভাব হবেনা— এমপি মানিক সিলেটে বন্যা দুর্গত এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন ঘাটাইল উপজেলায় আশ্রয়ন প্রকল্পের অধীনে বরাদ্দকৃত ঘরে ফাটল ছাতকে বন্যার অবনতি,নদ-নদীতে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত উপজেলা সদরের সাথে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন গোবিন্দগঞ্জে বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট অনুর্ধ১৭ এর সেমিফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত পলাশবাড়ী‌তে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা জাতীয় গােল্ডকাপ ফুটবল টুর্ণামেন্টের শুভ উ‌দ্বোধন
মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ১২:০৮ পূর্বাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অস্ত্র ব্যবহার করছে ইউক্রেন।

Satyajit Das / ৮১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৩ মার্চ, ২০২২

সিলেট অনলাইন ডেস্ক:

ইউরোপ বা রাশিয়াতে পেট্রল বোমা বা বোতল বোমার একটা আলাদা নাম রয়েছে। সেখানে এটি মোলোটোভ ককটেল নামে পরিচিত। তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী ভায়াচিসলাভ মোলোটোভ-এর নাম থেকে এই বোমার উৎপত্তি। জানা গিয়েছে, ১৯২০ বা ১৯৩০-এ প্রথম মোলোটোভ ককটেল ব্যবহার করা হয়।

১৯৩৯-র সেপ্টেম্বরে শুরু হয় দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ। ওই বছরের শেষের দিকে ফিনল্যান্ড আক্রমণ করে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন। ব্যাপক গোলাবর্ষণ করা হয়। তখন সোভিয়েত ইউনিয়নের প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী ভায়াচিসলাভ মলোটোভ জানান, ফিনল্যান্ডে বোমাবর্ষণ করছে না তাঁদের দেশ। বরং মানবিক সাহায্য করা হচ্ছে। সোভিয়েত মন্ত্রীর সেই কথাকে কটাক্ষ করেই ফিনল্যান্ডবাসী ওই বোমার নাম দেন “Molotov picnic baskets” এবং তাঁরা প্রতিজ্ঞা করেন সোভিয়েত সেনাকেও ওই মানবিক সাহায্য দিয়েই স্বাগত জানাবেন তাঁরা। এরপর যখন ফিনল্যান্ডে পৌঁছায় সোভিয়েত ট্যাঙ্ক তখন হাজার হাজার পেট্রল বোমা বা মোলোটোভ ককটেল ব্যবহার করেন ফিনল্য়ান্ডবাসী। মোলোটোভ ককটেল-এর প্রতিরোধের মুখে পড়ে সোভিয়েত ট্যাঙ্ক। যদিও লড়াইয়ে পরাজিত হয় ফিনল্যান্ড । কিন্তু থেকে যায় তাঁদের আবিষ্কৃত মোলোটোভ ককটেল। রুশ সেনার বিরুদ্ধে এবারও এই বোমা ব্যবহার করছেন ইউক্রেনিয়রা।

বহু প্রতিবাদ বা বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পেট্রল বোমা বা বোতল বোমা ব্যবহার হয়ে থাকে। কাঁচের বোতলে গ্যাস, পেট্রল, তার অয়েল ভরে, তার উপরে আগুন ধরিয়ে ছুড়ে দেওয়া হয়। মূলত পুলিশ কিংবা সেনার দিকে সেই বোমা ছুড়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা। ইউক্রেনের যুদ্ধক্ষেত্রেও এই ধরনের পেট্রল বা বোতল বোমা ব্যবহার করছেন সাধারণ মানুষ। রুশ সেনার বিরুদ্ধে এভাবেই প্রতিরোধ গড়ে তুলছেন তাঁরা।
জানা গিয়েছে, ১৯২০ বা ১৯৩০-এ প্রথম মোলোটোভ ককটেল ব্যবহার করা হয়। স্প্যানিশ সিভিল ওয়ারের সময় এটি অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক বোমা হিসেবে ব্যবহার করা হয়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধেও এই অস্ত্রের বহুব ব্যবহার হয়েছে।

প্রতিবেদনঃ এস.ডি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩
১৪১৫১৬১৭১৮১৯২০
২১২২২৩২৪২৫২৬২৭
২৮২৯৩০৩১  

বিভাগের খবর দেখুন