আজ ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সময় : ভোর ৫:৫৩

বার : বুধবার

ঋতু : শরৎকাল

অবশেষে পূর্ণ বহালের দায়িত্ব পেলেন ইউপি চেয়ারম্যান মুখলিছ মিয়া!

পলাশ পাল স্টাফ রিপোর্টার:: আইনি জটিলতা কাটিয়ে অবশেষে পূর্ণ বহালের দায়িত্ব পেলেন শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার ৭ নং নুরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুখলিছ মিয়া। বৃহস্পতিবার (১০) সেপ্টেম্বর স্ব-পদে দায়িত্ব পালনের আদেশ পান তিনি। আগামী রবিবার (১৩) সেপ্টেম্বর ইউনিয়ন পরিষদে বসবেন বলে জানান চেয়ারম্যান মুখলিছ মিয়া। এর আগে গত ১৯ আগস্ট বহিস্কারাদেশ পূর্ণ বহাল করেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ। মহামান্য হাইকোর্টের আদেশ কপি হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক বরাবর আসলে যথাযথ নিয়ম নীতির মাধ্যমে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দায়িত্ব পালনের আদেশ দেন।
জানাগেছে, নূরপুর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে গত ৮ মে অভিযান পরিচালনা করেন হবিগঞ্জের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াসিন আরাফাত রানা। এ সময় সরকারি ত্রাণ বিতরণ করার জন্য সেখানে দেওয়া দুই হাজার কেজি চালের মধ্যে পাওয়া যায় এক হাজার ৭০০ কেজি চাল। ৩০০ কেজি চালের হদিস না মেলায় বাকি চাল জব্দ করেন এবং অনিয়মের অভিযোগে গত ১৩ মে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ৩৪ (১) অনুযায়ী তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। আদালতের প্রতি সম্মান রেখে গত (১৩ জুলাই) হবিগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নূরুল হুদা চৌধুরীর আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
এরপর ২০ জুলাই জামিনে মুক্ত হয়ে তিনি বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে উক্ত আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করেন। দীর্ঘ শুনানী শেষে হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিমের বেঞ্চ এ গতকাল মঙ্গলবার মুখলিছ মিয়াকে ৭নং নুরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদে বহালের আদেশ দেন।
এবিষয়ে নুরপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুখলিছ মিয়া বলেন, কতিপয় স্বার্থন্বেষী মহলের মিথ্যা অভিযোগের প্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার বিভাগ এ আদেশ দিয়েছিল। উক্ত অভিযোগ হাইকোর্টের আপিল বিভাগে মিথ্যা প্রমানিত হওয়ায় আমাকে স্ব-পদে বহাল রেখে সকল কার্যক্রম পরিচালনার আদেশ দেন। আগামী রবিবার থেকে আমি নিয়মিতভাবে ইউনিয়বাসীর সেবা করতে পারব।
জানতে চাইলে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মিনহাজুল ইসলাম জানান, মহামান্য হাইকোর্টের আদেশে তিনি স্ব পদে বহাল হয়েছেন। বর্তমান দায়িত্বপ্রাপ্ত ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে স্ব-পদে বহালের জন্য ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।
ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান স্ব-পদে বহাল হওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ সর্বস্তরের জনসাধারনের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। এদিকে চেয়ারম্যানের স্ব-পদে বহালের আদেশে পাওয়ায় মুখলিছ মিয়া ইউনিয়নবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category