আজ ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সময় : সন্ধ্যা ৭:৫৮

বার : রবিবার

ঋতু : হেমন্তকাল

বানিয়াচংয়ে মানা হচ্ছেনা সাস্থ্যবিধি, করোনা সংক্রমণ বাড়ার আশংকা,প্রশাস‌নের নিকট ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী স‌চেতন মহ‌লের।

হ‌বিগঞ্জ বি‌শেষ প্র‌তি‌নি‌ধি :হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে করোনা সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে মাস্ক ও শারীরিক দুরুত্ব ছাড়াই গ্রাম-গঞ্জের হাট বাজারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। যার ফলে ক্রমাগত বাড়ছে স্বাস্থ্য ঝুঁকি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলার নির্দেশনা থাকলেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই তা মানতে দেখা যায়নি। এতে করোনা সংক্রমণ বাড়ার ঝুঁকি বাড়ছে। মাস্ক না পরলে ১ লাখ টাকা জরিমানা বা ৬ মাস জেলের কথা থাকলেও তার কোন তোয়াক্কা করছে না সাধারণ মানুষ। বানিয়াচংয়ের বিভিন্ন হাট-বাজার ও পাড়া-মহল্লা ঘুরে দেখা যায়, কারণে অকারণে বাহিরে অবস্থানরত জনতার বিশাল একটি অংশ মাস্কবিহীন ও শারীরিক দুরুত্ব না মেনেই ঘুরে বেড়াচ্ছেন। মনে হচ্ছে এসব দেখার জন্য বানিয়াচংয়ে কেউ নেই। সচেতন মানুষের দাবি, তারা নিরাপদ জীবন চান। সুস্থ থাকতে চান। এভাবে মাস্ক ও শারীরিক দুরুত্ব ছাড়া যত্রতত্র ঘুরে বেড়ালে সবার সমস্যা। করোনা ভাইরাস যেভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে সামনে তা আরও বাড়বে। কামাল খানী গ্রামের আনছার আলীর কাছে মাস্ক পরিধান বা সাস্থ্যবিধি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, কিসের করোনা ভাইরাস। এসব করোনা ভাইরাস বলতে কিছু নেই। করোনা প্রতিরোধে সচেতন নাগরিক কমিটি বানিয়াচং শাখার যুগ্ন আহবায়ক সাংবাদিক ইমদাদুল হোসেন খান বলেন, সরকার লকডাউন উঠিয়ে নিলেও সবাইকে শারীরিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। ঘরের বাইরে গেলে মুখে মাস্ক পরিধান করতে হবে। তিন থেকে ছয় ফুট দূরে দূরে অবস্থান করে প্রয়োজনীয় কাজ সারতে হবে। মসজিদে নামাজের সময়ও মুখে মাস্ক এবং শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে নামাজ পড়তে হবে। এসব সবাইকে নিজ দায়িত্বে সচেতনতার সাথে মেনে চলতে হবে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ব্যক্তিগতভাবে আমাদের সবাইকে কঠোরভাবে শারীরিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতেই হবে। এর কোনই বিকল্প নেই। বানিয়াচং প্রেসক্লাব সভাপতি এস এম খোকন বলেন, করোনা সংক্রমণ রোধে সরকারের সাস্থ্যবিধি আইন মানতে হবে। জরুরী প্রয়োজন ব্যাতিত বাহিরে বের হওয়া যাবেনা। মনে রাখবেন, আপনার সুরক্ষা আপনার হাতে। এব্যাপারে জানতে চাইলে বানিয়াচং উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি) ইফফাত আরা জামান উর্মি বলেন, সাস্থ্যবিধি মেনে চলা সবার উচিৎ। আমি নিজে মাস্ক পরিধান করি এবং সাস্থ্যবিধি মেনে চলি। আমি আশা করি বানিয়াচংয়ের মানুষ মাস্ক পরিধান ও শারীরিক দুরুত্ব বজায় রেখে চলবেন এবংঅন্যান্য সাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন। অন্যথায় করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ার আশংকা থেকে যাবে।এ ব্যাপা‌রে জানা‌তে চাই‌লে অা‌মিরখানী রে‌দোয়া‌নিয়া দা‌খিল মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক কারী মাওলানা নবীর অালী বলেন, সবাইকে সাস্থ্যবিধি মেনে চলা সবার উচিত। হাদিসে ও মহামারীতে সতর্ক ও সচেতনাতার থাকা কথা বলা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category