শিরোনাম
ছাতকে বন্যার্তদের মাঝে যুবলীগ নেতা সাহাব উদ্দীনের ২য় ধাপে ত্রান বিতরন হলি আর্টিজান হামলার ৬ বছর;হয়নি মামলার নিষ্পত্তি। বিশিষ্ট শিল্পপতি জনাব আবু উল রশীদ এর পক্ষথেকে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে নগদ অর্থ বিতরণ করা হয় লোভ-হিংসা ও সংকির্ণ মনোভাবের ঊর্ধ্বে ওঠে মানবতার কল্যাণে কাজ করে যেতে হবে ——-সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী মাধবপুরে কৃষ্ণপুরের ব্রিজটি না হওয়াতে বিকল্প কাঠের সেতু তৈরী করে যানচলাচলে উপযোগী করছেন এলাকাবাসী জগন্নাথপুরে যুক্তরাজ্য প্রবাসী আজাদ মিয়া ফরুকের পরিবারের পক্ষ থেকে ত্রান বিতরণ মৌলভীবাজার সমিতি সিলেট এর ত্রান ও নগদ অর্থ বিতরন বৃষ্টির মধ্যেও খাদ্য সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন ইউ.কে প্রবাসী আলাউদ্দিনের পরিবার শাল্লা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ। ‘ভারত বাংলাদেশের কল্যাণ চায় না’-অধ্যক্ষ ইউনুস আহমেদ।
শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১১:৩০ পূর্বাহ্ন
Notice :
Wellcome to our website...

বড়লেখায় পলিথিন আটকের জেরে সংঘর্ষের ঘটনায় ২ মামলা, গ্রেপ্তার ৩

Coder Boss / ৩৪৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৩ জুলাই, ২০২০
পলিথিন ব্যবসায়ীর সংঘর্ষ ফলোআপ

 

 

এম. এম আতিকুর রহমান –  মৌলভীবাজারের বড়লেখায় পলিথিন আটকের জেরে দুইপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় আজ দুটি মামলা হয়েছে। আজ ৩ জুলাই শুক্রবার বিকেলে দুই মামলার এজাহারনামীয় তিন আসামিকে থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছে- পৌরসভার গাজিটেকা গ্রামের রিয়াজ উদ্দিনের পুত্র সুমন আহমদ (২৪) নয়ন আহমদ (২২) ও আবুল হোসেন (২৭)। থানা পুলিশ ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত বুধবার (১ জুলাই) স্থানীয় প্রশাসন পৌর শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে মজুদ করা প্রায় ৭০ মণ নিষিদ্ধ পলিথিন উদ্ধার করে। এর মধ্যে মামলার প্রধান আসামি সাইদুল ইসলামের পারিবারিক মালিকানধীন রেলওয়ে স্টেশন রোডস্থ শাহজালাল শপিং সিটি থেকেও পলিথিন উদ্ধার করে প্রশাসন। এ ঘটনার পর থেকে আসামিরা শামীম আহমদকে (মামলার বাদী) সন্দেহ করছিলেন। তাদের ধারণা শামীম আহমদ পুলিশকে তথ্য দিয়ে পলিথিনগুলো ধরিয়ে দিয়েছেন। এ আক্রোশে বৃহস্পতিবার সকালে উত্তর চৌমুহনী এলাকায় শামীম আহমদকে কুপিয়ে জখম করে আসামীরা। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বড়লেখা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং অবস্থার অবনতি হলে পরে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। শামীম আহমদের উপর হামলার খবর পেয়ে তার ভাই যুবলীগ নেতা জসিম উদ্দিনসহ স্বজনরা ঘটনাস্থলে গেলে বেলা ১টার দিকে উভয় পক্ষে সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে জসিমসহ উভয় পক্ষে প্রায় ১২জন আহত হন। পরে জসিম উদ্দিনসহ কয়েকজন ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নেন এবং অন্যান্যরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নেন। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। সংঘর্ষের খবরে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে যান বড়লেখা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ। তিনি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইয়াছিনুল হককে সাথে নিয়ে উভয় পক্ষের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। সংঘর্ষের ঘটনায় আহত শামীম আহমদ বাদী হয়ে ১৮ জনের ও জসিম উদ্দিন বাদী হয়ে ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন। দুটি মামলায় শাহজালাল শপিং সিটির মালিক সাইদুল ইসলামকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। মামলার পর শুক্রবার বিকেলে অভিযান চালিয়ে পুলিশ উল্লেখিত ৩জনকে গ্রেপ্তার করে। বড়লেখা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ইয়াছিনুল হক মামলার সত্যতা নিশ্চিত করে আজ ৩ জুলাই বিকেলে বলেন- সকালের হামলার ঘটনায় একটি ও দুপুরের ঘটনায় আরও একটি করে দুটি মামলা হয়েছে। পৃথক দুটি মামলায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে এজাহারনামীয় ৩জনকে গ্রেপ্তার করেছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Registration Form

[user_registration_form id=”154″]

পুরাতন সংবাদ দেখুন

বিভাগের খবর দেখুন