আজ ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

সময় : সকাল ৬:৪৩

বার : মঙ্গলবার

ঋতু : হেমন্তকাল

নোয়াগাঁও গীরিধারী মন্দিরে পুকুরে দুর্গাপ্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে শেষ হচ্ছে দুর্গাৎসব

নাহিদ হাসান,মাধবপুর উপজেলা প্রতিনিধি :

মাধবপুর পৌরসভা ৯নং ওয়ার্ড নোয়াগাঁও শ্রী শ্রী গীরিধারী মন্দিরে পুকুরে দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হলো বাঙালি সনাতন ধর্মালম্বীদের মহা দুর্গোৎসব।

দেবী দূর্গা এবার এসেছেন দোলায়, যাবেন হাতিতে চড়ে।চণ্ডীপাঠ, বোধন এবং দেবীর অধিবাসের মধ্যদিয়ে শুরু হয় বাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের এবারের মহা দুর্গোৎসব।

বিশ্বের সকল হিন্দু ধর্মাল্মাবীদের সবচেয়ে অন্যতম বড় উৎসব শারদীয় দুর্গোৎসব । আর আজ দেবী দূর্গা মায়ের বিসর্জনের মাধ্যমে শেষ হচ্ছে এবারের দুর্গোৎসব ।

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও হিন্দু সম্প্রদায়ে লোকজন শারদীয় দুর্গোৎসব জাঁকজমক ভাবে পালন করলেও ছিল কিছু ভিন্নতা। করোনা আর আম্পানের পর বৃষ্টি উৎসবকে মলিন করে দিয়েছে।

গত ২১শে (অক্টোবর) বুধবার দেবী বোধনের মাধ্যমে এবছর দেবী দূর্গার আবির্ভাব হয়েছে এবং আজ ২৭ (অক্টোবর) সোমবার আজ পূজার বিজয় দশমী। চারিদিকে চলছে বিজয়ের সুর।

প্রথম দিন থেকে শুরু করে মণ্ডপে, মণ্ডপে ঢাক-ঢোল, কাঁশি-বাঁশি সল্প পরিসরে থাকলেও উলুধ্বনিতে মুখোরিত হয়েছে আকাশ-বাতাস। পূজা মণ্ডপ গুলো সাজানো হয়েছে নতুন আঙ্গীকে । আলোক সজ্জ্বায়-সজ্জ্বিত হয়েছে প্রতিটি মণ্ডপ। দূর্গোৎসব পালনে নতুন জামা-কাপড়সহ ঘরের প্রয়োজনীয় যাবতীয় জিনিসের কেনা-কাটা করছে সনাতন ধর্মালম্বীগন।

কিন্তু করোনা মহামারীর জন্য এবার দূর্গা পূজা উদযাপন হচ্ছে অতি সীমিত পরিসরে।
বিশ্বব্যাপি মহামারী করোনার কারনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে প্রতিবছরের ন্যায় এবারও দর্শকদের মন আকর্ষণের জন্য পূজামণ্ডপ গুলিকে ভিন্ন আঙ্গীকে সাজানো হয়েছে।

কিছু কিছু মণ্ডপে ঢোকার সময় মাক্স এবং হ্যান্ড স্যানিটাইজার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
এছাড়া করোনা মহামারীর কারনে কিছু শর্ত আরোপ করে পূজা কমিটিকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে মাধবপুর প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

দর্শনার্থীদের জন্য পূজা মন্ডপে সার্বিক নিরাপত্তা বিধান করা হয়েছে। আইন শৃঙ্খলা বাহিনী নিরাপত্তা বিধানে সার্বক্ষণিক সচেষ্ট আছেন । কোন প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা কেউ যেন ঘটাতে না পারে সে বিষয়ে রয়েছে প্রশাসনের বিশেষ নজরদারি।

বৃষ্টিভেজা বৈরী আবহাওয়ার মধ্যে জাঁকজমক ভাবে উদযাপন করছেন আজ এই শারদীয় দূর্গাপূজার বিজয় দশমী।

প্রতিমা বিসর্জ্জনে পুলিশ, ট্যুরিস্ট পুলিশ, আনসার সদস্য, গ্রাম পুলিশ সহ পূজা উদযাপন পরিষদের স্বেচ্ছাসেবক গন নিয়োজিত আছেন।

এছাড়া ষষ্ঠী থেকে নবমী পর্যন্ত সকলের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে পূজার্থীদের সন্ধ্যার আগেই মণ্ডপে যাওয়ার জন্য বলা হয়েছিল।

পূজামণ্ডপ গুলোতে অদৃশ্য অসুর নিধন ও বিশ্বের চলমান মহামারীর করোনা থেকে দেশবাসীর মুক্তির জন্য সৃষ্টিকর্তার নিকট বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।

উল্লেখ্য, নোয়াগাঁও দুর্গাপূজা উদযাপন পরিষদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল,আগামী ২৬ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে শোভাযাত্রা ছাড়াই গীরিধারী মন্দিরে পুকুরে দুর্গা প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হবে। সেখানে সামান্য নাচ গানের মাধ্যম অনুষ্ঠান শেষ হয়েছে। নোয়াগাঁ দুর্গাপূজা উদযাপন কমিটির
সভাপতি পংকজ কুমার সাহা, সাধারণ সম্পাদক বেনু রায়, নোয়াগাঁও গ্রামবাসি ও ওয়ার্ড কাউন্সিল আলহাজ্ব দুলাল খাঁ,আব্দুল সামাদ সেলিম, সাংবাদিক নাহিদ হাসান, উপস্থিত ছিলেন দুর্গা প্রতিমা বিসর্জন করা হয়েছে প্রমূখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category